অ্যাডিশনাল এসপি নয় পরিদর্শকরাই থানার ওসি

থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) পদে অতিরিক্ত পুলিশ সুপারদের (অ্যাডিশনাল এসপি) পদায়নের চিন্তাভাবনা চলছে বলে গুঞ্জন উঠলেও তা সঠিক নয়। ডিএমপির একাধিক পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে আলাপকালে এমনটাই জানা গেছে। সম্প্রতি গণমাধ্যমে অ্যাডিশনাল এসপিদের থানার ওসি হিসেবে পদায়নের বিষয় সংবাদ প্রকাশ হয়।
এ বিষয়ে বাংলাদেশ পুলিশ অ্যাসোসিয়েশন সভাপতি মতিঝিল থানার ওসি ওমর ফারুক বলেন, বিষয়টি হাস্যকর। থানার ওসির দায়িত্ব শুরু থেকেই পরিদর্শক মর্যাদার কর্মকর্তারাই পালন করে আসছেন। মাঠ পর্যায়ের একজন পুলিশের স্বপ্ন তাকে এক পর্যায়ে পদোন্নতি পেয়ে তিনি ওসি হবেন। অ্যাডিশনাল এসপিদের এ দায়িত্বে দেয়া হলে তাদের দায়িত্ব কারা পালন করবেন। গত বুধবার এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে আইজিপির কাছে সাক্ষাৎ করে এ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারি বিষয়টি খোলাসা করে তাদের জানিয়েছেন, এটা করা হচ্ছে না। থানার ওসি পরিদর্শকই থাকবেন।
পুলিশের একাধিক কর্মকর্তা জানান, থানার ওসি পদে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নিয়োগ দেয়া হলে নানা ধরনের প্রশাসনিক জটিলতা তৈরি হবে। ওসিরা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট বা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের পরোয়ানা ও আদেশ তামিল করেন। ওসিরা অ্যাডিশনাল এসপি পদমর্যাদার হলে তাদের সাথে মেট্রোপলিটন বা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটদের পদমর্যাদার বিরোধ দেখা দেবে। তারা জানান, থানায় ওসি পদে অ্যাডিশনাল এসপি ও তিনজন পরিদর্শকের পদ তৈরি হলে সহকারী পুলিশ সুপার ও সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপারদের পদায়ন কোথায় হবে। সার্কেলে সহকারী পুলিশ সুপার বা জোনের সহকারী কমিশনার পদে কারা থাকবেন, পুলিশ সুপার কারা হবেন সেটাও নির্ধারিত হয়নি। এ ক্ষেত্রে থানায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নিয়োগ হলে বড় ধরনের প্রশাসনিক জটিলতা তৈরি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।
২০০৭ সালে থানায় অফিসার ইনচার্জ পদে বিসিএস ক্যাডার কর্মকর্তা বা সহকারী পুলিশ সুপারদের (এএসপি) নিয়োগ দেয়ার প্রথম নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়। পরে নন-ক্যাডার কর্মকর্তাদের আপত্তির মুখে সেটা বাস্তবায়ন হয়নি। পরে ২০১০ সালের আগস্ট মাসে থানায় অফিসার ইনচার্জ হিসেবে এএসপি পদমর্যাদার একজন ক্যাডার কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। তা ছাড়া ২০০৯ সালে অনুমোদন হওয়া ডিএমপির অর্গানোগ্রামে থানায় অফিসার ইনচার্জ হিসেবে পরিদর্শকের পরিবর্তে সহকারী কমিশনার (এসি) বা সহকারী পুলিশ সুপার পদমর্যাদার কর্মকর্তাদের দায়িত্ব পালন করার কথা বলা হয়। পাশাপাশি প্রতিটি থানায় তিনজন করে পরিদর্শক দেয়ার কথাও বলা হয়।
পদগুলো হচ্ছে পরিদর্শক প্রশাসন, পরিদর্শক তদন্ত ও পরিদর্শক অপারেশন। পরে নন-ক্যাডার কর্মকর্তাদের আপত্তির মুখে থানায় এসি বা এএসপি পদায়ন করা হয়নি। তবে থানায় অফিসার ইনচার্জ পদের পাশাপাশি একজন করে পরিদর্শক তদন্ত ও পরিদর্শক অপারেশন নিয়োগ দেয়া হয়। বর্তমানে দেশের প্রায় সব থানায় তিনজন করে পরিদর্শক দায়িত্ব পালন করছেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: