কক্সবাজারের সাংবাদিকতার যতকথা

আজাদ মনসুর
প্রায়সাংবাদিকআমরা কম বেশিসংবাদপত্রের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সম্পর্কে জানি। সংবাদপত্রেরনিরপেক্ষ,সত্যনিষ্ঠসংবাদ পরিবেশনকরাবাঞ্চনীয়। সংবাদপত্রযতবেশিনিরপেক্ষ থাকবে, সাংবাদিকরাযত বেশিনির্ভীক ও সৎ থাকতেপারবে দেশ ও জাতির মঙ্গল হবেনিশ্চিত। আর সেজন্যই তোসাংবাদিকদেরসমাজের অতন্দ্র প্রহরীবলাহয়েছে। সংবাদপত্রেরএসব বৈশিষ্ট্য হলেও, অনেকসংবাদপত্র ও সাংবাদিকনানা স্বার্থে উল্টাপথে হাঁটেনযাকেআমরাঅপসাংবাদিকতাবলি। কক্সবাজারেরসাংবাদিকতায়সাংবাদিক ও সংবাদপত্রেএহেনচর্চা নিয়েপুরো দেশজুড়েআলোচনায়। কক্সবাজারেরসাংবাদিকতারযতকথা’রআজকেরষষ্ঠপর্ব।
পাঠক, গেলপঞ্চমপর্বে শেষ করছিলামকক্সবাজারেরসংবাদপত্রগুলোকিভাবেচলে। এখানেএকটাকথাবলেরাখি ২-৩টি সংবাদপত্রছাড়াঅবশিষ্টসংবাদপত্রগুলোতেসম্পাদকীয়নীতি ও সাংবাদিকতার নৈতিকতাচর্চাকরার দরকারপড়েনা। আবারমালিকপক্ষডিএফপিটিকিয়েরাখতেপ্রত্যেকজনবলেরমাসিকহাজিরাসিট ও মাসিক বেতন/ভাতাদি ও অন্যান্য আনুষঙ্গিক সুবিধাদি পাচ্ছেমর্মে স্বাক্ষর নেয়ারব্যপারে গত পর্বে বলেছিলাম। যারাপত্রিকাভাড়া দেয় তাদের শুধুতদারকি দরকার। কারণভাড়াতেসম্পাদকরাশুধুপ্রত্যেকদিনকাগজটি বেরকরেই দায়ছাড়েন।
প্রতিমাসে ও প্রতিবছরেপত্রিকারঅনেকগুলোপ্রশাসনিককাজ থাকে, এটিকিন্তু ঠিকরাখতেহবে। তাহলেযারাঅপসাংবাদিকতাকরেকিনবা যে ভাড়াতেসম্পাদকদ্বারাপত্রিকাটিপরিচালিতহচ্ছেতাদের সম্পাদকীয়নীতি ও সাংবাদিকতার নৈতকতানিয়েমাথাব্যথাকরার দরকারপড়েনা। তারা এ পেশায়এসেছে কেবল কেউ সৌখিনসাংবাদিকতাকরতেসমাজেবাহ! বাহ! পাওয়ারআশায়, কেউ অপরাধিসাংবাদিকতায়আসছেমটরসাইকেলেরসামনে-পেছনে প্রেস লেখাস্টিকার ও কোমরেক্যামরাঝুলিয়েহাতে ২-৩টা মোবাইলসহভাবনিয়েমাঠেময়দানেচষে বেড়াতেএবং থানায়গিয়েপুলিশকর্তাদের সাথে ভাবজমিয়েঅপরাধঢাকতে, আবার কেউ বিভিন্নসরকারি দপ্তরকিংবা থানায় দালালিকরারমানসে, দেখা গেছে কেউ আবারপত্রিকারএকটি পদ নিয়ে চেয়ারবসে থাকতে।
তারাআসলেসমাজেকতটুকুগ্রহণযোগ্য নিজেরাছাড়া কেউ জানারকথানয়। আমিঅমুখপত্রিকারতমুখসম্পাদক, অমুখঅনলাইন পোর্টালেরতমুখসম্পাদকবাসাংবাদিক, অমুখটিভিরতমুখসাংবাদিক। এখানেটিভিসাংবাদিকদেরনিয়েঅন্য পর্বে লিখবো। সাংবাদিকতাযখনকরছিতখনটিভিসাংবাদিকদেরনিয়েনালিখলেকক্সবাজারেরসাংবাদিকতারযতকথারঅসম্পূর্ণতা থাকবে। কোনএকটাটিভিসাংবাদিকআবার কোনপত্রিকার কোনএকটা পদে আসিন। তাইওনারাবুঝে গেছেন, তারপরওঅন্যপর্বে টিভিসাংবাদিকতানিয়েপাঠকদের কাছে শেয়ারকরব। যাবলছিলাম, ঐসবসাংবাদিকদেরশুধুমাত্র পদ সম্বলিতআইডিকার্ড, ভিজিটিংকার্ড, একটাক্যামরা ও প্রেসলিখাস্টিকারে মোড়ানোএকটি মোটরসাইকেল।
কোথায়পাহাড়কাটছে, কোন দোকানেঅপরিচ্ছন্নখাবারপরিবেশনকরছে, কোনসরকারি-বেসরকারি দপ্তরেরকর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে ভিত্তিহীনঅভিযোগসহবিভিন্নবিষয়েহলুদ সাংবাদিকতায় মেতে উঠে ওই সব সংবাদপত্রের লেলিয়ে দেয়া সাংবাদিকনামধারী ব্যক্তিরা। এছাড়াওসংবাদপত্রগুলোবিভিন্নউপজেলাপ্রতিনিধি, থানাপ্রতিনিধি, শহরপ্রতিনিধি ও সাংগঠনিকউপজেলাপ্রতিনিধি, সদরপ্রতিনিধিএমনকিইউনিয়নপর্যায়েওসাংবাদিকদেরনিয়োগনামেকার্ড বিক্রি করেলুটে নেয়হাজারহাজারটাকা।
কোনপত্রিকায়একজন ব্যক্তি যখনসাংবাদিকতায়নামলিখাতেআসেনতখনতাকেটাকাবিনিময়েপ্রথমে কার্ড দেয়া হয়। এরপরতাকেপত্রিকারনিয়ম-কানুননিয়েকথাবলাহয়। আপনাকেপ্রতিদিনপত্রিকাদিব ১০-২০টি, মাসেপত্রিকা বাবদ এত টাকা, পত্রিকারখরচ বাবদ এত টাকাপাঠাতেহবে। ধরেন, পুরো জেলায়পত্রিকাটির সাথে নিয়োজিত ৩০-৩৫ জনকেকার্ড দেয়া হয়। প্রতিজনপ্রতিমাসেপ্রতিদিনেরপত্রিকা বাবদ ও পত্রিকারখরচ বাবদ ৫০০০ হাজারটাকাকরেদিলেপ্রায় দু’লাখটাকা। এদেরমধ্যে কেউ দিতেঅপারগহলে ওই পদে আরেকজন। পত্রিকারঅমুখসম্পাদক ও তমুখসম্পাদক থেকে পদ বাবদ ২-৩ লাখটাকাএককালিন।
এতে শেষ হয়েযায়নি, ৮ উপজেলার ৮টি থানা থেকে মাসিকনির্দ্দিষ্টপরিমাণেমাসিকমাসোহারা, ট্রাফিকপুলিশ, জেলারবিভিন্নপুলিশফাঁড়িসহসরকারিবিভিন্নচিহ্নিত দপ্তর থেকে মাসিকমাসোহারানিয়েইসংবাদপত্রগুলো দাপিয়েচলছে। এছাড়াওআরওঅনেকঅনেকখাদ এবংবিভিন্নপর্যায়েরয়েছেচাঁদাবাজিকরার। ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানতুআছেই। যে পত্রিকারকর্তা ব্যক্তিরা যতবেশি চৌকসততবেশি কৌশলখাটিয়েকাজকরে থাকেন। আমারকক্সবাজারেরসংবাদপত্রে ও সংবাদপত্রের সাথে সংশ্লিষ্টসকলভাইদের অনুরোধকরবোলিখাগুলোকে মোটেওনীতিবাচক দৃষ্টিতেনা দেখতে। আজকেরবাস্তবতাআগামীতেআপনারআমারজন্য কল্যাণবয়েআনবেনিশ্চিত।
তাইপরিবর্তনের জন্য যা কেউ বলছেনাবাবলারসাহসেধরছেনাকিংবাসংবাদপত্র ও সাংবাদিকনীতি-নৈতিকতাপরিপন্থি এমনটিমনেকরছেন। আসলেতানয়আপনারকক্সবাজারএভাবেসাংবাদিকতায়তাচ্ছিল্য হোকনিশ্চয়আপনিচাননা? তাহলেকাঁদে কাঁদ মিলিয়েসংবাদপত্রেরঅবস্থা বিবেচনায়এগিয়েআসুন। হোকনাপরিচালনাসম্পাদক, সম্পাদক, সহসম্পাদকসহ কোন পদে হয়তুআসিনহতেপারবোনা, কিন্তু একটি পেশাদারিত্ব নির্ভরসংবাদপত্রেবুকফুলিয়েসাংবাদিকতাতুকরতেপারবো। কক্সবাজারেসম্পাদকীয়নীতি সম্বলিত ও বেতনকাঠামোনির্ভর ২-৩ টিপত্রিকা, ১ টিইংরেজিপত্রিকা, ১টি মাসিকপত্রিকা, ১টি ত্রৈমাসিকপত্রিকানিয়মিত হোকসময়ের দাবি। আসুন প্রাসঙ্গিক কিছুনিয়েভাবি। কলংকমুক্ত কক্সবাজারতথা কলংকমুক্ত সাংবাদিকতায়কক্সবাজারকেএগিয়েনিয়েযায়।
অনেকেবলতেপারেন এগুলোআলোচনায়আনারকি দরকার! তাহলেবলি, সংবাদপত্রএকটাশিল্প। এটাআন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। এই শিল্পএভাবেচলতেপারেনা, এটারপরিবর্তনআনা দরকার। এভাবেচলতে থাকলেসাধারণমানুষসংবাদপত্র ও সাংবাদিকদেরনিয়েবর্তমানে যেভাবেবিমুখ, অদূরভবিষ্যতে আরওভয়াবহরূপধারণকরতেপারে। কক্সবাজারদিয়েনাহয়শুরুহলো, সাংবাদিকতারতীর্থ ভূমিহিসেবেখ্যাতজাতীয় প্রেসক্লাবসহসাংবাদিকতাসংশ্লিষ্টঅন্য প্রতিষ্ঠানগুলো উদ্যোগনিবেনা কোনবিশ্বাস?
কক্সবাজারেরসাংবাদিকতারযতকথায়যতগুলোপর্ব থাকবে সেখান থেকে শেষ কয়েকটিপর্বে শুধুমাত্রসংবাদপত্র ও সাংবাদিকতানিয়েকিছু গুরুত্বপূর্ণ ম্যাসেজ দেয়া হবে। যেখান থেকে পরিবর্তনের রূপরেখা তৈরিহতেপারে। যদিওপরিবর্তনআপনিআমিকরতেপারবোনাকিন্তু আপনাকে আঙ্গুল দিয়ে দেখাতেহবেসরকারের উচ্চ পর্যায়েযাতেবিষয়গুলোআমলে নেয়।
এখনআসিপত্রিকাগুলোরপ্রতিদিনের সার্কোলেশনকতো? এই নিয়েওপাঠকসমাজেএকটিপ্রশ্নঘুরপাকখায়প্রতিনিয়ত। সার্কোলেশননিয়েআরেকপর্বে বিস্তারিতবলবো। চলবে…

Leave a Reply

%d bloggers like this: