কক্সবাজার শহরের তারাবনিয়ারছড়া থেকে ১ লাখ ৭০ হাজার ইয়াবাসহ রবিউল গ্রেফতার


নিজস্ব প্রতিবেদক :

চলমান মাদক বিরোধী অভিযানের মধ্যেও আত্মগোপনে থাকা টেকনাফের এক ইয়াবা গডফাদারকে আটক করেছে র‌্যাব-১৫ এর সদস্যরা। এরপর তার ভাড়া বাসা তল্লাশী করে ১লাখ ৭০হাজার ইয়াবাসহ আরো এক সহকারী কিশোরকে আটক করা হলেও অপর সহযোগীরা পালিয়ে যায়।

সুত্র জানায়,গত ১৪ জুন দুপুর সাড়ে ১২টায় র‌্যাব-১৫,একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কক্সবাজার সদর উপজেলার তারাবনিয়ার ছড়ার জনৈক দানু মিয়ার ভাড়া বাসায় কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী মাদক বিক্রির জন্য অবস্থানের খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে টেকনাফের হ্নীলাস্থ দক্ষিণ লেদার আবু শামার পুত্র রবিউল আলম (৩১) ও তার সহযোগী ১৬ বছরের এক কিশোরকে ২টি ব্যাগসহ আটক করে। এসময় ঝিলংজা এলাকার জনৈক দীন মোহাম্মদ পালিয়ে যায়। পরে ব্যাগ তল্লাশী করে ১লাখ ৭০হাজার ইয়াবা পাওয়া যায়। এই ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা দায়েরের পর ধৃতদের কক্সবাজার সদর থানায় সোর্পদ করা হয়েছে।

ধৃত রবিউল আলম এক সময় হ্নীলা ষ্টেশনে কাপড়ের দোকানের কর্মচারী হলেও ইয়াবা চোরাকারবারে পা দিয়ে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ বনে গাড়ি, বাড়ি, দোকান ও ফ্ল্যাটের মালিক বনে গেছে। মাদক বিরোধী অভিযান শুরু হলে ইয়াবা গডফাদার রবিউল কৌশলে গা ঢাকা দেয় কিন্তু মাদক চোরাচালান এখনো বন্ধ করেনি। তার অবর্তমানে তারই দোকান সিন্ডিকেট সদস্য কাঞ্জর পাড়ার মৃত আবুল হোছনের পুত্র নুরুল আমিন এসব তদারকি করছে। যার ফলে রবিউল আলম র‌্যাবের হাতে এত বড় ইয়াবার চালান নিয়ে আটক হওয়ার পর ক্রস ফায়ার থেকে বাঁচানোর জন্য কক্সবাজার শহরে অবস্থান করছিল। এই পার্টনার নুরুল আমিনও পূর্বে ইয়াবাসহ আটক হয়েছিল। এই বিষয়ে নুরুল আমিনের নিকট জানতে চাইলে সেই কাজে জড়িত নেই বলে দাবী করে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: