কলম্বিয়াকে হতাশায় ডুবিয়ে সেমিতে চিলি

শেষ টাইব্রেকার শট থেকে গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করে জার্সি খুলে উদযাপন করছেন অ্যালেক্সিস সানচেস। গত কয়েকটি কোপা আমেরিকা আসরে ফুটবল ভক্তদের কাছে এটি খুব পরিচিত একটি দৃশ্য। এর আগে গত দুই আসরেই টাইব্রেকারে আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে শিরোপা জিতেছিল চিলি যার প্রতিটিতে শেষ শট এসেছে সানচেসের পা থেকে।
আরো একবার সে দৃশ্য দেখল ফুটবল বিশ্ব। আরো একবার টাইব্রেকারের স্নায়ুচাপ আর ভাগ্যের খেলায় উতরে গেলো চিলি। তবে এবার ফাইনালে নয়, কোয়ার্টার ফাইনালে।
টাইব্রেকারে কলম্বিয়াকে ৫-৪ গোলে হারিয়ে কোপা আমেরিকার সেমিফাইনালে উঠলো বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চিলি। প্রথম চার শটের প্রত্যেকটিই জালে পাঠান দুই দলের খেলোয়াড়েরা। কিন্তু পঞ্চম শটে কলম্বিয়ার উইলিয়াম তেসিয়োর শট পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায়। তেসিয়ো ভুল করলেও ভুল করেননি অভিজ্ঞ সানচেস। গোলরক্ষককে বোকা বানিয়ে দলের জয় নিশ্চিত করেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ফরোয়ার্ড।
এর আগে করন্থিয়াস অ্যারেনায় ম্যাচটি শুরু হয় নির্ধারিত সময়ের ২০ মিনিট পর। হবে নাই বা কেন, চিলির কোচ যে আটকা পড়েছিলেন সাও পাওলোর অতি পরিচিত যানজটে! ৪০ হাজার দর্শকের অপেক্ষার পালা শেষ করে অবশেষে ম্যাচ শুরু হলেও ম্যাচে ফুটবলীয় কসরতের চেয়ে শারীরিক শক্তি প্রদর্শনে বেশি ব্যস্ত ছিলেন দুই দলের ফুটবলাররা। ফলাফল? ৯০ মিনিটের খেলায় ৩৫ ফাউল!
নির্ধারিত সময়ে না জেতায় নিজেদের দুর্ভাগা বলতেই পারে চিলি। ম্যাচে যে দুইবার জালে বল জড়িয়েছিলেন চিলির খেলোয়াড়েরা! প্রথমার্ধে আরাঙ্গিস আর দ্বিতীয়ার্ধে ভিদাল গোলের নিশানা পেলেও ভিডিও রেফারির রিভিউতে বাতিল হয় দুটি গোলই।
উরুগুয়ে-পেরু ম্যাচের বিজয়ী দলের বিপক্ষে ৪ জুলাই সেমিফাইনালে লড়বে চিলি।

Leave a Reply

%d bloggers like this: