খেয়েপরে বেঁচে থাকতে খরচ কমাচ্ছে বাংলাদেশের সাধারণ মানুষ

বাজেটে প্রায় সবকিছুর দামই বেড়েছে। কিন্তু সেই সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়েনি সাধারণ মানুষের আয়। অন্যদিকে জরিপ কিংবা পরিসংখ্যানে জানানো হচ্ছে, মোট দেশজ উৎপাদন (জিডিপি) বেড়েছে। জিডিপি যে হারে বাড়ছে, ততটা উদ্দীপনা কিন্তু নেই ব্যক্তি খাতের ভোগ ব্যয়ে। উল্টো চলতি অর্থবছর ব্যক্তি খাতে ভোগ ব্যয় কমে গেছে। তারা খেয়েপরে বেঁচে থাকতে খরচ কমাচ্ছে।
বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) বলছে, গত অর্থবছর ভোগ ব্যয় ছিল জিডিপির ৭০ দশমিক ৮১ শতাংশ। চলতি অর্থবছরের সাময়িক হিসাবে তা কমে ৬৯ দশমিক ৭৭ শতাংশে দাঁড়াতে পারে বলে প্রাক্কলন করা হয়েছে।
অর্থ মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ব্যক্তি খাতে মোট ভোগ ব্যয় ছিল জিডিপির ৭২ দশমিক ৪৪ শতাংশ। পরের অর্থবছর তা নেমে আসে ৬৯ দশমিক ১৩ শতাংশে। ২০১৬-১৭ অর্থবছর ব্যক্তি খাতে ভোগ ব্যয় আরো কমে হয় ৬৮ দশমিক ৬৭ শতাংশ। তবে ২০১৭-১৮ অর্থবছর তা কিছুটা বেড়ে ৭০ দশমিক ৮১ শতাংশে উন্নীত হয়।
চলতি অর্থবছর ব্যক্তি খাতে ভোগ ব্যয় আবার ১ শতাংশীয় পয়েন্ট কমতে পারে বলে প্রাক্কলন করেছে বিবিএস।
ভোগ ব্যয় কমা অর্থনীতিতে মন্দার ইঙ্গিত দেয়। আবার ভোগ ব্যয় মাত্রাতিরিক্ত হলে ব্যক্তি ও জাতীয় সঞ্চয় বাধাগ্রস্ত হয়। ফলে হুমকিতে পড়তে পারে অভ্যন্তরীণ বিনিয়োগ। স্থবিরতা নামতে শুরু করে উৎপাদন ও কর্মসংস্থানে। তাই ভোগ ব্যয় একটি মাত্রায় হওয়া প্রয়োজন।
একটি বেসরকারি কোম্পানিতে কর্মরত আবদুছ ছোবহান বলেন, ‘গত দশ বছরে ঢাকায় জীবনযাত্রার ব্যয় যেভাবে বেড়েছে, সেভাবে পাল্লা দিয়ে আমাদের আয় বাড়েনি। বেতনের প্রায় পুরোটায় খরচ হয়ে যাচ্ছে বাড়িভাড়া ও সন্তানদের লেখাপড়ার খরচে। তাই বেঁচে থাকার জন্য আমরা যেভাবে পারছি খরচ কমাচ্ছি।’

Leave a Reply

%d bloggers like this: