পুলিশ কর্মকর্তার কাছ থেকে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ: তথ্য ফাঁসের দায়ে দুদক কর্মকর্তা সাময়িক বরখাস্ত

বাংলাদেশে দুর্নীতি দমন কমিশন বা দুদকের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ জানিয়েছেন, প্রতিষ্ঠানটির একজন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ঘুষ গ্রহণের অভিযোগ ওঠার পর তাকে তথ্য ফাঁসের অভিযোগে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।
অভিযোগ অনুযায়ী, পুলিশের ডিআইজি মিজানুর রহমানের অবৈধ সম্পদের তদন্ত করতে গিয়ে সেই পুলিশ কর্মকর্তার কাছ থেকে ঘুষ নিয়েছেন দুদকের পরিচালক খন্দকার এনামুল বাসির।
তবে মিস্টার বাসিরকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে মিস্টার রহমানের কাছে তদন্ত সম্পর্কিত তথ্য ফাঁস করায়।
পুলিশ কর্মকর্তা মিস্টার রহমানকে নারী নির্যাতনের অভিযোগে আগেই দায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার করে নিয়েছিল পুলিশ সদর দপ্তর।
পরে গত বছর মে মাসে তার বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ আহরণের বিষয়টি তদন্ত শুরু করে দুদক।
এখন মিস্টার বাসিরের বিরুদ্ধে ওই পুলিশ কর্মকর্তার কাছ থেকে প্রায় চল্লিশ লাখ টাকা ঘুষ গ্রহণের অভিযোগ উঠলো।
এ সম্পর্কে তাদের মধ্যে কথোপকথনের একটি রেকর্ড টেলিভিশন চ্যানেলে প্রচারের পর আজ দুদক কর্মকর্তাকে সাময়িক ভাবে বরখাস্তের সিদ্ধান্ত জানালেন দুদক চেয়ারম্যান।
দুদক কার্যালয়ে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ” মিজানুর রহমানের দুর্নীতি তদন্তে নতুন কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়েছে। শৃঙ্খলা ভঙ্গ ও তথ্য পাচারের অভিযোগে তাকে (এনামুল বাসির) সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।”
এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন অন্যায় করলে কেউ ছাড় পাবেনা।
ইকবাল মাহমুদ বলেন, “আমরা দায়িত্ব নিয়েছি বলেই তো অ্যাকশন নিয়েছি। চাকরির শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হলো। আর ঘুষ লেনদেনের অভিযোগের আলাদা তদন্ত হবে”।

Leave a Reply

%d bloggers like this: