ভিসি কলিমউল্লাহর ‘ডিসকো ড্যান্স’ ভাইরাল

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহর একটি নাচের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।
ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ আশির দশকের বলিউডের জনপ্রিয় হিন্দি সিনেমা ‘ডিসকো ড্যান্সার’-এর সুপারহিট গান-‘আই এম এ ডিসকো ড্যান্সার’ গানের সঙ্গে একদল তরুণ-তরুণীর সাথে তিনি নাচছেন। এ সময় উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহর নাচের ভঙ্গি দেখে কেউ কেউ তাকে মাতাল এবং নেশাগ্রস্ত বলে মন্তব্য করেছেন। আবার কেউ কেউ এটাকে স্বাভাবিক বলেই মন্তব্য করেছেন। এ ব্যাপারে জানাতে ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহর মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।
ফেসবুকে আবু সাঈদ নামে একজন মন্তব্যে লিখেছেন, ‘যাক বাবা নাচতে ভালো পারে, যদিও আজ মনটা খুব ভালো ছিলো না। দেখে ঘুম হবে মনে হয়, দেশি-বিদেশি মিলিয়ে নাচতে নাচতে পাগল হামার কলিমউদ্দিন খালু।’
এমডি আমিনুল ইসলাম লিখেছেন, ‘বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ’ যিনি ১১/১ এর সময় রাজাকার,আল-বদরের ন্যায় আর্মি সেনাদের সহযোগিতা করেছেন। যার নেতৃত্বে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা আপার মুক্তিকামী শিক্ষক-ছাত্রদের ওপর হামলা, নিপীড়ন ও গ্রেফতার করা হয়।’
রানা মাসুদ নামে একজন লিখেছেন, ‘খোঁজ নিয়ে দেখা যাবে সাধারণ ছাত্র/ছাত্রীরাই ভিসি স্যারকে তাদের সাথে নাচতে অনুরোধ করেছেন। আর এটাই আজ তাকে বাজেভাবে উপস্থাপন করার জন্য পোস্ট করা হচ্ছে। এই রকম পার্টিতে এই রকম নাচ হতেই পারে। এটা দোষের কিছু না।
এদিকে ভিডিওতে কমেন্টস করে উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ লিখেছেন, ‘‘It was performed during the gala night of the final year students of Political Science Department of Begum Rokeya University Rangpur. Faculty Members and Outgoing Students took part along with the VC.’’
অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ ২০১৭ সালে আগামী চার বছরের জন্য বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন। ভিসি হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার পর থেকে তার বিরুদ্ধে নানা দুর্নীতি ও কর্তব্যের প্রতি অবহেলার নানা অভিযোগ ওঠে এবং এগুলোর বেশ গুরুত্বের সঙ্গে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় প্রকাশ হয়।
সবসময় ক্যাম্পাসে থাকার শর্তে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসিবে নিয়োগ পান অধ্যাপক নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ। এ শর্ত অনুযায়ী স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে ঢাকা থেকে রংপুরেও আসেন। উঠেন সুপরিসর উপাচার্য ভবনে। কিন্তু দিন কয়েক যেতে না যেতেই আবার ঢাকায় সপরিবারে ফিরে যান তিনি। এরপর থেকে তিনি ঢাকাতেই থাকেন। মাঝে-মধ্যে সভা-সেমিনারে যোগ দিতে বিশ্ববিদ্যালয়ে আসেন।
বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ সম্পর্কে এসব কথা জানান বিশ্ববিদ্যালয়টির বেশ কয়েকজন শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা।
অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ বিটিএফও ১৯৮৪ সাল থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগে শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি লোক প্রশাসন বিভাগের চেয়ারম্যান এবং জাপান স্টাডি সেন্টারের ডিরেক্টর ইনচার্জ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি প্রেষণে বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস্ (বিইউপি) এর উপ-উপাচার্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ড. কলিমউল্লাহ জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষণ পরিষদ (জানিপপ) এর সম্মানিত চেয়ারম্যান। দেশ-বিদেশের জার্নাল ও প্রকাশনা সংস্থা থেকে তার বেশ কিছু গ্রন্থ ও গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে।জাগ:

Leave a Reply

%d bloggers like this: