সেমির লড়াইটা কঠিন হয়ে গেল শ্রীলঙ্কার

বড় দেরিতে জ্বলে উঠল দক্ষিণ আফ্রিকা। সেমি ফাইনালের লড়াই থেকে আগেই ছিটকে গেছে তারা। বাকি ম্যাচগুলো নিছক আনুষ্ঠানিকতাই তাদের জন্য। সেই আনুষ্ঠানিকতার ম্যাচে চেস্টার-লি-স্ট্রিটে শুক্রবার শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হয়েছিল তারা।
শ্রীলঙ্কার জন্য অবশ্য ম্যাচটি গুরুত্বপূর্ণ ছিল। বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড-পাকিস্তানের সাথে তারাও আছে শেষ চারের লড়াইয়ে। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে হেরে বসল চন্ডিকা হাথুরুসিংহের শিষ্যরা। ফলে সেমির লড়াইটা আরো কঠিন হয়ে গেল তাদের জন্য।
এদিন প্রথমে ব্যাট করে ৪৯.৩ ওভারে ২০৩ রান করে অল আউট হয়ে যায় শ্রীলঙ্কা। জবাবে ৩৭.২ ওভারে ১ উইকেটে ২০৬ করে জয় তুলে নিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা।
শুক্রবারের ম্যাচে জিতলে ৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের পাঁচে উঠে যেত তারা। তাদের হাতে আছে আরো দুই ম্যাচ। ফলে শীর্ষ চারের লড়াইয়ে তুলনামূলক সুবিধাজনক অবস্থায়ই থাকতো শ্রীলঙ্কা। তাতে অবশ্য বাংলাদেশকে টপকে যেতো তারা।
কিন্তু সেটি হল না। দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে ৯ উইকেটে হেরে ৬ পয়েন্ট নিয়ে পড়ে আছে সাতেই।
এদিন ব্যাট হাতে লঙ্কা-বধের কাজটা হাশিম আমলাকে নিয়ে সারেন অধিনায়ক ফ্যাফ ডু প্লেসি নিজে। দুই জনের অবিচ্ছিন্ন ১৭৫* রানের জুটিতেই জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা।
দলীয় ৩১ রানে কুইন্টন ডি ককের (১৫) উইকেট হারায় প্রোটিয়ারা। তারপর আমলা ও ডু প্লেসির জুটির ম্যাচজয়ী লড়াই। এই লড়াইয়ের পথে ৯৬* রানে অপরাজিত থাকেন ডু প্লেসি। অন্যপ্রান্তে আমলা অপরাজিত ছিলেন ৮০* রানে। শ্রীলঙ্কা আরো কিছু রান তুলতে পারলে সেঞ্চুরিটা তুলে নিতে পারতেন প্রোটিয়া অধিনায়ক!

Leave a Reply

%d bloggers like this: