১৯৯২ বিশ্বকাপে পাকিস্তানের কাছে ইচ্ছে করেই হারে নিউজিল্যান্ড!

দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে জয়ের পর, নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে জয়। আসরের শুরুটা খারাপ হলেও পাকিস্তান এখন সেমিফাইনালের লড়াইয়ে বেশ এগিয়ে। দলটির সমর্থকেরা এরই মধ্যে ১৯৯২ ফিরে আসছে বলে ডাক দিয়েছে। ১৯৯২ সালেই তো বিশ্বকাপ জয় করে পাকিস্তান।
ওই ১৯৯২ সালেই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে একটি গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে জয় পায় পাকিস্তান। সাবেক ক্রিকেটার বাসিত আলি এত দিন পর জানালেন, ওই ম্যাচটি জেনেবুঝে হেরে যায় নিউজিল্যান্ড!‍
সম্প্রতি পাকিস্তানের একটি টিভি অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। শুধু এই না, ভারত-আফগানিস্তান ও অস্ট্রেলিয়া-ভারত ম্যাচের ফল নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন তিনি।
অনুষ্ঠানের উপস্থাপক বাসিত আলীকে প্রশ্ন করেন, ‘জেনেও হারা যায়?’ তিনি বলেন, ‘এমন ভাবে খেলবে যে বুঝতেই দেবে না। আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে কী হয়েছে? অস্ট্রেলিয়া কী করেছে ভারতের বিপক্ষে? ওয়ার্নার সাহেব এটাই তো ছিলেন তাই না?’
বাসিত আলি আরো বলেন, ‘১৯৯২ সালে নিউজিল্যান্ড জেনেবুঝেই হেরেছিল পাকিস্তানের কাছে। ইমরান খানকে জিজ্ঞাসা করলেও তিনি একই কথা বলবেন। নিউজিল্যান্ড নিজের দেশেই সেমিফাইনালটা খেলতে চেয়েছিল, এ কারণে হেরেছিল।’
১৯৯২ সালের বিশ্বকাপে সেমিফাইনালের আগে পাকিস্তান নিজেদের শেষ ম্যাচটা খেলে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে। পুরো আসরে দাপট নিয়ে খেলা মার্টিন ক্রো-গ্রেটব্যাচের নিউজিল্যান্ডকে সাত উইকেটে হারিয়ে দেয় পাকিস্তান। ওই জয়ে সেমিফাইনালটা নিশ্চিত হয় পুরো আসরে ধুঁকতে থাকা ইমরান খানের পাকিস্তানের। ওই ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয় ক্রাইস্টচার্চে।
সেমিফাইনালে সেই নিউজিল্যান্ডের সঙ্গেই খেলা হয় পাকিস্তানের। অকল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ওই ম্যাচেও জয় পায় পাকিস্তান। ইনজামাম ও ওয়াসিম আকরামের দুর্দান্ত খেলায় নিউজিল্যান্ডকে চার উইকেটে হারায় পাকিস্তান।
ফাইনালে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে বিশ্বকাপ জয় করে ইমরান খানের পাকিস্তান।
নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটি নিয়েই ওই মন্তব্য করলেন বাসিত আলি। তিনি আরো বলেছেন, পাকিস্তানকে সেমিফাইনালে উঠতে বাধা দিতে চাইবে ভারত। আর এজন্য বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার কাছে হেরে যেতে পারে ভারত!
পাকিস্তান দলে বাসিত আলির অভিষেক হয়েছে ১৯৯৩ সালে। ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত তিনি খেলেছেন। পাকিস্তানের হয়ে ১৯টি টেস্ট ও ৫০টি ওয়ানডে খেলেন তিনি।

Leave a Reply

%d bloggers like this: