অবশেষে তুরস্কের হাতে বহু কাঙ্ক্ষিত এস-৪০০

যুক্তরাষ্ট্রের প্রবল বিরোধিতার মুখেও এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা হাতে পেয়েছে তুরস্ক। সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্বে সবচেয়ে আলোচনার জন্ম দেয়া এই সমরাস্ত্র রাশিয়ার কাছে থেকে বুঝে নিয়েছে।
এতথ্য নিশ্চিত করে তুর্কি প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় শুক্রবার (১২ জুলাই) বিবৃতি দিয়েছে।
তুরস্কের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তারা এই ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার প্রথম চালান বুঝে পেয়েছে। রাজধানী আঙ্কারার কাছে একটি সামরিক ঘাঁটিতে এসে পৌছেছে এর প্রথম চালান। এর ফলে ন্যাটো সদস্য তুরস্কের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের বিরোধ আরো বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
বিবৃতিতে বলেছে, এই আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার যন্ত্রপাতির প্রথম পর্ব আঙ্কারার পাশ্ববর্তী মুরটেড বিমান ঘাঁটিতে এসেছে। আগামী কয়েক দিনের মধ্যে এর আরো কয়েকটি চালান এসে পৌছাবে। তারপরই ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থাটি প্রস্তুত হয়ে যাবে ব্যবহারের জন্য।
ইস্তাম্বুল থেকে আলজাজিরার প্রতিনিধি জানিয়েছে, এ বছরের অক্টোবর মাস থেকে এই ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষ ব্যবস্থা পুরোদমে কাজ করতে শুরু করবে।
রাশিয়ার তৈরি এই সর্বাধুনিক অস্ত্রটি প্রথম দেশ হিসেবে হাতে পেল তুরস্ক। যুক্তরাষ্ট্র গত দুই বছর ধরে রাশিয়ার সাথে তুরস্কের এই চুক্তির ঘোর বিরোধতা করে আসছে। কিন্তু তাতেও পিছু হটেনি রজব তাইয়েব এরদোগানের সরকার।
যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন ন্যাটো জোটের কোন সদস্য দেশ রাশিয়ার এই সর্বাধুনিক অস্ত্র কিনবে সেটিও পছন্দ নয় পশ্চিমাদের। যে কারণে তুরস্কের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন করে টানাপোড়েন শুরু হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র ঘোষণা দিয়েছে রাশিয়ার কাছ থেকে এই অস্ত্র কিনলে তুরস্কের ওপর তারা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে। কিন্তু সেই হুমকি টলাতে পারেন তুর্কিদের।

Leave a Reply

%d bloggers like this: