ইতিহাস গড়া হলো না উইন্ডিজের, শ্রীলঙ্কার জয়

২৪ বলে ৪০ রান, হাতের নাগালেই ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের জয়টা। শ্রীলঙ্কার নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে শেষ পর্যন্ত তারা জিততে পারেনি। তাই চলমান বিশ্বকাপে নিজেদের অষ্টম ম্যাচে তারা হেরে গেছে ২৩ রানে।
তাই হলো না, ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইতিহাস গড়া। নিয়মরক্ষার এই ম্যাচে ক্যারিবীয়রা জিততে পারলে বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড হতো। এর আগে আয়ারল্যান্ড ২০১১ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের ৩২৮ রান তাড়া করে জয় পেয়েছিল।
তবে এদিন ওয়েস্ট ইন্ডিজ হারলেও নিকোলাস পুরানের চমৎকার সেঞ্চুরিতে জয়ের একেবারেই কাছাকাছি চলে গিয়েছিল। ৩১৫ রানে করে ইনিংস গুটিয়ে নেয় দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।
পুরান ১০৩ বলে ১১৮ রানের চমৎকার ইনিংস খেলেন। আর এলিন ৫১ রান করে তাঁকে যোগ্য সাপোর্ট দেন।
এদিকে সেমিতে খেলার সুযোগ হাতছাড়া হয়ে গেছে। তাই ম্যাচটা হচ্ছে নিয়মরক্ষার। তারপরও প্রাপ্তি আছে শ্রীলঙ্কার। দলটি পেয়েছে নতুন তারকা যার নাম অভিস্কা ফার্নান্ডো। তিন নম্বরে নেমে চলতি বিশ্বকাপে নিজের যোগ্যতার প্রমাণ দিচ্ছিলেন তিনি। আজ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে করলেন সেঞ্চুরি।
ডারহামে বিশ্বকাপের মঞ্চেই পেলেন ক্যারিয়ারের প্রথম শতক। আর ওই শতকের ওপর ভিত্তি করে ৫০ ওভারে ৬ উইকেটে ৩৩৮ রান করেছে শ্রীলঙ্কা।
১০৩ বলে ১০৪ রান করে আউট জন অভিস্কা। তাঁর ইনিংসে ছিল নয়টি চারের মার এবং দুইটি ছক্কার মার। এছাড়া ৪৫ রানে অপরাজিত ছিলেন থিরিমান্নে।
ডারহামে টসে জিতে ফিল্ডিং নেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক জেসন হোল্ডার। তবে ব্যাটিংয়ে শুরুটা ভালোই করেছে করুনারত্নের দল। ৯৩ রানে প্রথম উইকেটের পতন হয়।
২৩ ওভার শেষে শ্রীলঙ্কার রান ২ উইকেটে ১৪১। করুনারত্নে ও কুশল পেরেরা শুভসূচনা করেন। কর্টরেল বা ওশানে টমাস তেমন কোনো প্রভাবই ফেলতে পারেননি। করুনারত্নেকে আউট করেন হোল্ডার। ৪৮ বলে ৩২ রান করে আউট হন তিনি। অন্যদিকে অর্ধশতক করে বড় ইনিংসের ইঙ্গিত দিচ্ছিলেন কুশল পেরেরা। ৫১ বলে ৬৪ রান করে রানআউট হন তিনি।
ওপেনাররা যাওয়ার পর শ্রীলঙ্কার হাল ধরেন অভিস্কা ফার্নান্ডো ও কুশল মেন্ডিস।
পয়েন্ট টেবিলে নাজুক অবস্থানের কারণে লঙ্কানদের সেমিতে উঠে আসার সুযোগ ক্ষীণ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের অবস্থা আরো শোচনীয়। আগেই তারা সেমিফাইনাল রেস থেকে দূরে চলে গেছে। যদিও দুদলই টেবিলে উন্নতির ইচ্ছায় মাঠে নামার অপেক্ষা করছে।
ভারত-ইংল্যান্ড ম্যাচের দিকে তাকিয়ে ছিল শ্রীলঙ্কা। ওই ম্যাচে ইংল্যান্ড হারলে সেমিতে খেলার একটা সম্ভাবনা ছিল শ্রীলঙ্কার। তবে ওই সারিতে শ্রীলঙ্কারও আগে আছে বাংলাদেশ ও পাকিস্তান। তবে গতকাল ইংল্যান্ড জয় পাওয়ায় সম্ভাবনা একেবারেই কমে যায় শ্রীলঙ্কার।

Leave a Reply

%d bloggers like this: