ঐক্যফ্রন্টে ভাঙন, জোট ছাড়লেন কাদের সিদ্দিকী

সরকারবিরোধী বৃহত্তর ঐক্যের ডাক দিয়ে গঠনের নয় মাসের মাথায় ভাঙন দেখা দিল জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে। জোট ছেড়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি আবদুল কাদের সিদ্দিকী।
সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এই ঘোষণা দেন সাবেক আওয়ামী লীগ নেতা। আগের রাতে দলের নীতি নির্ধারকতা বৈঠক করে এই সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেন।
জোটের ঐক্যফ্রন্টের কার্যকারিতা এবং তৎপরতা নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই ক্ষুব্ধ ছিলেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের নেতাকর্মীরা। গত বৃহস্পতিবার দলের বর্ধিত সভায় নেতাকর্মীরা নিজেদের এমন মনোভাব তুলে ধরেন।
২০১৮ সালের ১৩ অক্টোবর সরকারবিরোধী আন্দোলনের অংশ হিসেবে গঠন হয় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। সবচেয়ে বড় দল বিএনপি হলেও জোটের প্রধান নেতা হিসেবে আবির্ভুত হন গণফোরামের সভাপতি কামাল হোসেন। অন্য দল ও সংগঠনগুলো ছিল জেএসডি, নাগরিক ঐক্য। গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরীও শুরু থেকেই ছিলেন এই জোটে। পরে ব্যক্তিগতভাবে যোগ দেন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা মইনুল হোসেন।
গত ৫ নভেম্বর জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগ দেন সাবেক কাদের সিদ্দিকী। ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে টাঙ্গাইল-৮ আসনে প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন তিনি। তবে খেলাপি ঋণ থাকায় সেটা সম্ভব ছিল না। পরে তার মেয়ে কুড়ি সিদ্দিকী সেখান থেকে লড়ে পরাজিত হন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: