কী হয়েছে ব্যারিস্টার রফিকুলের?

বিএনপির জ্যেষ্ঠ নেতা, স্থায়ী কমিটির সদস্য রফিকুল ইসলাম মিয়া ভীষণ অসুস্থ। এর আগেও তিনি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তবে এবারের অসুস্থতা আগের থেকে বেশি। তার মস্তিষ্কে অস্ত্রেপচার করতে হতে পারে। সেটা ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালে নাকি সিঙ্গাপুরে হবে, সেটা নিয়ে পারিবারিক সিদ্ধান্তের পরই নেয়া হবে পরবর্তী পদক্ষেপ। একথা জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবির খান।
শারীরিক অসুস্থতা ও কারাগারে থাকায় অনেক দিন ধরে রাজনীতিতে তেমন একটা সক্রিয় ছিলেন না রফিকুল ইসলাম মিয়া। গত জাতীয় নির্বাচনের আগে ও পরে দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠকে উপস্থিত থাকা ছাড়া তেমন কোনো রাজনৈতিক কার্যক্রমে উপস্থিত ছিলেন না তিনি।
গত বুধবার সকালে ইস্কাটনের বাসায় গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন রফিকুল। ভর্তি করা হয় গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালে। সেখানে নিউরো বিশেষজ্ঞ শফিকুল আলমের তত্ত্বাবধানে তার চিকিৎসা চলছে।
১৯৯১ থেকে ৯৬ সাল পর্যন্ত খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে প্রথম সরকারের সময় গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ছিলেন রফিকুল। তিনি দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন রোগে ভুগছেন।
শায়রুল কবির জানান, বিএনপি নেতা নিউরো সমস্যায় ভুগছেন। তার অপারেশন করতে হবে। কিন্তু সেটা ইউনাইটেডে করাবেন না সিঙ্গাপুর যাবেন সে সিদ্ধান্ত আজকে হতে পারে। তবে তিনি মস্তিষ্কে কোন সমস্যায় ভুগছেন তা সঠিক করে বলতে পারেননি শায়রুল।
দলের শীর্ষ নেতার শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ বেশ কয়েকজন নেতা হাসপাতালে গেছেন।
সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী রফিকুল ইসলাম মিয়ার বিরুদ্ধে ৪২টি মামলা রয়েছে। গত বছর তিনি দুদকের এক মামলায় বেশ কিছুদিন কারাভোগ করেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: