ছেলেধরার পর এবার নতুন গুজব!

গত কয়েকদিনে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে নিহত হয়েছেন কয়েকজন নিরহ মানুষ। আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন।
সম্প্রতি গণপিটুনির ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় পরিস্থিতি সামাল দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীদের।
দেশের বিভিন্ন স্থানে ‘ছেলেধরা’ গুজব ছড়িয়ে গণপিটুনিতে হত্যা বন্ধে পলিশের সব ইউনিটকে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছে পুলিশ সদর দফতর। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেলেধরা সংক্রান্ত পোস্ট বা মন্তব্য ছাড়ানোদের বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
এদিকে এরমধ্যেই এবার ছড়িয়েছে নতুন একটি গুজব, ‘রক্ত নেওয়ার’ গুজব। গতকাল সোমবার (২২ জুলাই) সকালে রাঙামাটি সদরে রানী দয়াময়ী উচ্চ বিদ্যালয়ে ‘রক্ত নেওয়া’র এমন গুজব ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় অনেক অভিভাবক বিদ্যালয়ে ছুটে আসে। পরে প্রধান শিক্ষক ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা অভিভাবকদের জানান বিষয়টি গুজব।
কয়েকজন অভিভাবক বলেন, হঠাৎ করেই এলাকায় ছড়িয়ে পড়লো স্কুলে কারা এসে যেন রক্ত চাইছে। এমন কথা শোনার পর তারা স্কুলে ছুটে যান। এসে দেখি সব ঠিক আছে।
তবে গুজব ছড়িয়ে পড়ার পর স্কুলের কোনো সমস্যা হয়নি বলে জানিয়েছেন স্কুলের শিক্ষকরা। তবুও অভিভাবকদের মধ্যে কিছুটা ভয় কাজ করছে।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রণতোষ মল্লিক বলেন, সোমবার সকালে রক্ত নেওয়ার গুজব ছড়িয়ে পড়লে আতঙ্কিত অভিভাবকরা স্কুলে ভিড় জমান। পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ও শিক্ষকরা বিষয়টি গুজব বলে অভিভাবকদের শান্ত করেন।
এদিকে রাঙামাটি জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশীদ জানান, ছেলেধরা ও রক্ত নেওয়ার বিষয়টি নিছক ‘গুজব’-বিষয়টি জানাতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিং করা হয়েছে। এ ধরনের গুজব ছড়ানো বা অপপ্রচারে জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও তিনি জানান।

Leave a Reply

%d bloggers like this: