দ্য ইকনোমিক টাইমসের প্রতিবেদন রাখাইনকে বাংলাদেশের অন্তর্ভুক্ত করার মার্কিন প্রস্তাবকে ভিত্তিহীন বললো মিয়ানমার

রাখাইন রাজ্যকে বাংলাদেশের ভূখণ্ড হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য মার্কিন কংগ্রেস সদস্যের প্রস্তাবকে অমূলক হিসেবে আখ্যায়িত করেছে মিয়ানমার। ১৩ জুন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের দক্ষিণ এশিয়ার বাজেট বিষয়ক এক শুনানিতে এ প্রস্তাব দেন কংগ্রেসের এশিয়া প্রশান্ত উপ-কমিটির চেয়ারম্যান ব্র্যাডলি শেরম্যান।
ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইকোনমিক টাইমস মিয়ানমার সরকারের সূত্রের বরাত দিয়ে জানায়, মিয়ানমার সরকার বলছে, এটি একটি দেশের অখণ্ডতা ও স্বায়ত্তশাসনের প্রতি অশ্রদ্ধা। তারা আরো বলে, এটি অবাস্তব ধারণার ওপর ভিত্তি করে করা অমূলক প্রস্তাব।
এদিকে মিয়ানমারের প্রস্তাব নিয়ে সোমবার তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘এটি একান্তই কংগ্রেস সদস্যের নিজস্ব প্রস্তাব। কংগ্রেস এখনো এটি গ্রহণ করে নি। যে কেউ এই প্রস্তাব দিতে পারে। এ ধরনের প্রস্তাব আগেও উঠেছে। এই বিষয়ে আমার কোন মন্তব্য নেই। তবে আমি মনে করি এটি রোহিঙ্গাদেরকে মিয়ানমারে ফেরত নেয়ার বিষয়ে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।’
কংগ্রেসের ওই শুনানিতে ব্র্যাডলি শেরম্যান সুদান ও দক্ষিণ সুদান বিভক্তে যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থনের কথা তুলে ধরে বলেছিলেন, ‘কেন ওয়াশিংটন মিয়ানমারের রোহিঙ্গাদের নাগরিক অধিকার রক্ষায় একই ধরনের পদক্ষেপ নিতে পারে না?’ শেরম্যান বলেন, ‘যদি মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের দায়িত্ব নিতে না পারে তবে রাখাইনকে বাংলাদেশের সঙ্গে অন্তর্ভুক্ত করাই যুক্তিসঙ্গত। কারণ বাংলাদেশই নিপীড়িত রোহিঙ্গাদের দায়িত্ব নিচ্ছে।’
উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের আগস্টে রাখাইনে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হত্যা-ধর্ষণ ও নির্যাতনের শিকার হয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে সাড়ে ৭লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা। জনগোষ্ঠীর ৭ লাখ ৪০ হাজারেরও বেশি মানুষ। জাতিসংঘ এটিকে ‘উদ্দেশ্যমূলক গণহত্যা’ আখ্যায়িত করে মিয়ানমারের জেনারেলদের বিচারের মুখোমুখি করার জন্য আন্তর্জাতিক আদালতে সুপারিশ করেছে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: