পাহাড় ধসে রুমা-থানচি যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন, ঝুঁকিপূর্ণদের সরাতে অভিযান

বান্দরবানের চিম্বুক সড়কের নয় মাইল এলাকায় পাহাড় ধসে রুমা ও থানচি উপজেলার সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। সোমবার সকালে প্রবল বর্ষণের সময় ওই এলাকায় সড়কের ওপর একটি বিশাল পাহাড় ধসে পড়লে যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। এ সড়কে চলাচলকারী লোকজন এখন দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছেন।
এদিকে, টানা ভারী বর্ষণে বান্দরবান শহরের আশপাশে বেশ কয়েকটি এলাকায় পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটেছে। শহরের ইসলামপুর এলাকায় পাহাড় ধসে একটি টিনের ঘর ধসে পড়েছে। তবে এখনো পর্যন্ত কোথাও হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।
অন্যদিকে, জেলার সাঙ্গু ও মাতামুহুরী নদীর পানি বিপদসীমার কাছ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
প্রবল বর্ষণে পাহাড় ধসের আশঙ্কায় প্রাণহানি ঠেকাতে প্রশাসন বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে। জেলা প্রশাসক দাউদুল ইসলাম বেশ কয়েকটি ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা পরিদর্শন করেছেন। এ ছাড়া পাহাড়ের পাদদেশে বসবাসকারী লোকজনদের সরিয়ে নিতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে অভিযান চালানো হচ্ছে, সাথে চলছে সচেতনতামূলক মাইকিং।
জেলা প্রশাসক জানিয়েছেন, ‘ঝুঁ‌কিপূর্ণ স্থা‌নে বসবাসকারী‌দের দ্রুত স‌রি‌য়ে নি‌তে ইতোম‌ধ্যে নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজি‌স্ট্রেট‌দের নি‌র্দেশ দেওয়া হ‌য়ে‌ছে। এসব এলাকায় মাই‌কিংও করা হ‌য়ে‌ছে। সাতটি উপজেলায় ইতিমধ্যে ১২৬টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে বলে জানান তিনি।

Leave a Reply

%d bloggers like this: