পাহাড়ি ঢলে প্লাবিত পার্বত্য অঞ্চলের নিম্নাঞ্চল

টানা বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে তিন পার্বত্য জেলায় নদ-নদীর পানি বেড়ে প্লাবিত হয়েছে নিম্নাঞ্চল। পাহাড় ধসে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে রাস্তাঘাট, কালভার্ট ও ফসলী জমি। সড়ক পানিতে তলিয়ে থাকায় বান্দরবানের সঙ্গে বন্ধ রয়েছে সারা দেশের সড়ক যোগাযোগ।
বান্দরবান
টানা নয়দিনের প্রবল বর্ষণে বান্দরবানে সাঙ্গু ও মাতামুহুরী নদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। প্লাবিত হয়েছে জেলা সদরের আর্মিপাড়া, ইসলামপুর, বাসস্টেশন, লামা, আলীকদম, রুমা, থানচি ও রোয়াংছড়ির নিচু এলাকা। ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় খোলা হয়েছে একশ’ ২৬টি আশ্রয়কেন্দ্র। কেরাণীহাটের বড়দোয়ার এলাকায় রাস্তা তলিয়ে যাওয়ায় বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে বান্দরবানের সঙ্গে সারা দেশের সড়ক যোগাযোগ।
খাগড়াছড়ি
এদিকে, টানা এক সপ্তাহের বৃষ্টিতে খাগড়াছড়ির মাইনী নদীর পানির ঢলে ২৫টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। ভেসে গেছে শতাধিক পুকুরের মাছ। পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন ১৫ হাজার মানুষ। ১২ টি আশ্রয়শিবিরে অবস্থান নিয়েছেন তিন শতাধিক মানুষ। মেরুং এলাকায় সড়কে পানি ওঠায় দীঘিনালার সঙ্গে রাঙামাটির সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। পাহাড় ধসে মধুপুর বাজার, জিরোমাইল ও পানছড়িসহ বেশ কয়েকটি স্থানে সড়ক, কালভার্ট ও কৃষিজমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পর্যটন এলাকায় ভ্রমণে সতর্কতা জারি করেছে জেলা প্রশাসন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: