পুতিনের সমালোচকের শরীরে ‘বিষাক্ত পদার্থ’ দেওয়ার অভিযোগ

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সমালোচক, সরকার বিরোধী ব্যক্তিত্ব, দুর্নীতি বিরোধী আন্দোলনকর্মী হিসেবে পরিচিত অ্যালেক্সেই নাভালনির শরীরে বিষাক্ত পদার্থ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। তিনি এখন ভয়াবহ অ্যালার্জিতে ভুগছেন।
নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবিতে মস্কোতে শনিবারের বিক্ষোভের ডাক দেয়ার কারণে তাকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়। পরে অ্যালার্জি হলে কারাগার থেকে হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।
নাভালনির চিকিৎসক বলছেন, তার এমন শারীরিক অবস্থাকে শুধুমাত্র অ্যালার্জিক রিঅ্যাকশন হিসেবে চিহ্নিত করা অযৌক্তিক। তিনি সন্দেহ করছেন যে নাভালনিকে হয়তো কোন ‘বিষাক্ত পদার্থের’র সংস্পর্শে আনা হয়েছে।
এমন অবস্থায় নাভালনিকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেয়ারও বিরোধিতা করেছেন তিনি। কিন্তু নাভালনিকে এখন পুনরায় জেলে পাঠানো হবে।
স্থানীয় নির্বাচন থেকে বিরোধী প্রার্থীদের বর্জনের বিরুদ্ধে শনিবারের বিক্ষোভের ডাক দেয়ার কারণে গত সপ্তাহে নাভালনিকে ৩০ দিনের জন্য কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়। এই ঘটনার জেরে এ পর্যন্ত ১৪০০ জনকে আটকের খবর পাওয়া গেছে।
রাশিয়ার রাজনীতিতে একটি শক্তি হিসেবে নাভালনির উত্থান হয়েছিল ২০০৮ সালের শুরুর দিকে।
তখন তিনি রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত বড় বড় করপোরেশনের কথিত দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহার নিয়ে ব্লগিং শুরু করেন।
নাভালনি তার ফেসবুক পেজ থেকে এক বিবৃতির মাধ্যমে বলেছেন, ‘আমার কখনো এলার্জি ছিল না। সব খাবারই আমি আগে খেতে পারতাম। মে মাসে একটি খড়ের গাদার মধ্যে শুয়ে থাকতে পারতাম। কিন্তু এখন কেন আমার এমন হচ্ছে?’
তার দাবি, কোনো খাবারের ভেতর বিষাক্ত পদার্থ মিশিয়ে তার এই অবস্থা করা হয়েছে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: