বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে আন্তর্জাতিক ম্যাচ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে বেশ জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজন হবে, সেটা আগেই জানিয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এবার সেই আয়োজন নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কথা বলেছেন বিসিবির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে দুটি আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচের আয়োজন করতে যাচ্ছে বিসিবি। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের ম্যাচ দুটিতে অংশ নেবে এশিয়া একাদশ ও বিশ্ব একাদশ।
বিশ্বকাপের পর আইসিসির সভা শেষে দেশে ফিরেছেন বিসিবির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। আজ বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে আইসিসির সভা নিয়ে নাজমুল হাসান বলেন, ‘আইসিসির সভাতে বাংলাদেশ নিয়ে অনেক কথা হয়েছে। বাংলাদেশ বিশ্বকাপে হয়তো সেরা চারে যেতে পারেনি কিন্তু বাংলাদেশের পারফরম্যান্স নিয়ে সবাই খুব প্রশংসা করেছে। এটা আমাদের দেশের জন্য বড় প্রাপ্তি ।’
বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর আয়োজন নিয়ে বিসিবির সভাপতি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে ম্যাচ নিয়ে আমরা আইসিসি বরাবর আবেদন করেছিলাম। আইসিসি এই ম্যাচগুলোর সুযোগ দেয় শুধু দেশকে। যেমন, বাংলাদেশ বনাম বিশ্ব একাদশ। কিন্তু আমাদের আবেদন ছিল এশিয়া একাদশ বনাম বিশ্ব একাদশ। যেটা সাধারণত আইসিসির নিয়মে কখনো হয় না। সুখবর হলো, আমাদের এই আবেদনে বোর্ড সদস্যরা সমর্থন দিয়েছেন। আইসিসিকে তারা সবাই বলেছেন, যার কারণে আইসিসি ম্যাচ দুটিকে আন্তর্জাতিক ম্যাচের মর্যাদা দিয়েছে।’
এ প্রসঙ্গে বিসিবির সভাপতি আরো বলেন, ‘আইসিসির আরো বড় ঘোষণা হচ্ছে, বাংলাদেশকে দেখে আর কোনো দেশ এমন ম্যাচের জন্য আবেদন করতে পারবে না। আমরা বলব, এটা বাংলাদেশের জন্য অনেক বড় অর্জন। শুধু আমরাই এমন ম্যাচ আয়োজনের সুযোগ পাচ্ছি।’
আগামী বছর মার্চের ১৮ থেকে ২১-এর মধ্যে ম্যাচ দুটি অনুষ্ঠিত হবে। তবে এখনো কারো সঙ্গে যোগাযোগ শুরু হয়নি। ভেন্যু হবে, মিরপুর শের-ই বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম।
কিছুদিনের মধ্যেই দল গঠনে নেমে পড়বে বিসিবি। যদিও নির্বাচন প্যানেল এখনো ঠিক হয়নি। সভাপতির কথায়, ‘ক্রিকেটারদের কারা নির্বাচন করবেন বা দুই দলের অধিনায়ক কারা হবেন, এসব কিছু এখনো ঠিক হয়নি। আশা করি খুব দ্রুত কাজ শুরু হয়ে যাবে। এশিয়া একাদশ বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ভারত, শ্রীলঙ্কা এবং আফগানিস্তানকে নিয়ে গড়া হবে। দুই-একটা দেশ ছাড়া সব দেশের ক্রিকেটারদের পাব বলে আশা করি।’
এই ম্যাচগুলোতে শুধু বর্তমান ক্রিকেট তারকারাই সুযোগ পাবেন বলে জানালেন পাপন। খুব আকর্ষণীয় ম্যাচের আয়োজন করার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এই ম্যাচগুলোতে আমরা সাবেক কোনো ক্রিকেটারকে নিচ্ছি না। বর্তমানে যারা সেরা ক্রিকেটার তাদেরই নেব। সত্যিকার অর্থে, এই ম্যাচটিকে আমরা খুব আকর্ষণীয় করতে চাই। যার জন্য, সেরাদেরই সুযোগ দেওয়া হবে। আর আন্তর্জাতিক মর্যাদা পাওয়ায় সবাই গুরুত্ব দিয়েই খেলবে।’

Leave a Reply

%d bloggers like this: