বন্যায় এ পর্যন্ত মারা গেছে ৫৭ জন

এখনও অবনতির দিকে শেরপুর ও জামালপুরের বন্যার পরিস্থিতি। উত্তরাঞ্চলে পানি কমতে শুরু করলেও বেড়েছে জনদুর্ভোগ। বিশুদ্ধ পানি আর খাবার সংকটে বানভাসিরা। বন্যা দুর্গত অঞ্চলে পানিতে ডুবে গতকয়েকদিনে মারা গেছে শিশুসহ অন্তত ৫৭ জন।
শেরপুরের ফেরিঘাট পয়েন্টে পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের পানি বিপদ সীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পানি ঢলে বন্ধ রয়েছে শেরপুর-জামালপুর মহাসড়কে যান চলাচল। বেতমারি- ঘুঘরাকান্দি বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভেঙ্গে প্লাবিত হয়েছে নতুন নতুন এলাকা। চরম দুর্ভোগে পড়েছেন জেলার অর্ধলক্ষাধিক পানিবন্দি মানুষ। সাতপাকিয়া, নতুন ভাগলগড়, চরভাবনা ও শহরের গৌরিপুর এলাকায় বন্যার পানিতে ডুবে একই দিনে আরও চার শিশুর মৃত্যুতে জেলায় মৃতের সংখ্যা ১১ জনে পৌঁছেছে।
পাহাড়ী ঢলে জামালপুরেও বন্যা পরিস্থিতির চরম অবনতি হয়েছে। ব্রহ্মপুত্র নদর এবং যমুনার পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় জেলায় পাঁচ লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দী। রেল লাইন তলিয়ে যাওয়ায় বন্ধ রয়েছে দেওয়ানগঞ্জ-জামালপুর রেল যোগাযোগ। ঝুকি এড়াতে জামালপুর থেকে যমুনা সেতুর পূর্ব পাড় পর্যন্ত রেল যোগাযোগও বন্ধ রাখা হয়েছে। এ পর্যন্ত জেলায় পানিতে ডুবে আটজনের প্রাণহানি হয়েছে।
সিরাজগঞ্জ পয়েন্টে যমুনা নদীর পানি কিছুটা কমলেও এখনও বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পানিবন্দি সিরাজগঞ্জ সদর,কাজিপুর,বেলকুচি,চৌহালী ও শাহজাদপুর উপজেলার ৩৬টি ইউনিয়নের ২ লক্ষাধিক মানুষ। সিরাজগঞ্জ শহর রক্ষা বাঁধের দু’টি স্থানে ফাটল দেখা দেয়ায় আতংক ছড়ায়। সিসি ব্লক ও বালির বস্তা দিয়ে দ্রুত ফাটল মেরামত করে পানি উন্নয়ন বোর্ড। কুড়িগ্রামে বন্যার পানি নামতে শুরু করলেও বিপদ সীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে ব্রহ্মপুত্র নদ ও ধরলা। বিশুদ্ধ পানির অভাব এবং পানিবাহিত রোগে বেড়েছে জনদুর্ভোগ। গত ১১ দিনে জেলায় পানিতে ডুবে মৃতের সংখ্যা ১৩ জনে পৌঁছেছে।
গাইবান্ধায় বিপদসীমার উপরে থাকা ব্রহ্মপুত্র নদ ও ঘাঘট নদীর পানি কমতে শুরু করলেও বাঁধের ভেঙে যাওয়া অংশগুলো দিয়ে পানি ঢুকে প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা। তিস্তা নদীর পানি বিপদসীমার নিচে থাকলেও বাড়ছে করতোয়া নদীর পানিও। জেলায় এ পর্যন্ত মারা গেছে ৬ জন। জেলার পানি উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে, ১৯৮৮ সালের পর এবারই সবচেয়ে বেশি প্লাবিত হয়েছে গাইবান্ধা শহর। সরকারিভাবে ১০৯ মেডিকেল টিম গঠন করার কথা বলা হলেও চরাঞ্চলে মেডিকেল টিমের কোন সদস্যকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

Leave a Reply

%d bloggers like this: