বৃষ্টির কারণে ঝুঁকিতে রোহিঙ্গারা: জাতিসংঘ

কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির এলাকায় ভারী বৃষ্টিপাত ও ভূমিধসের আশঙ্কা প্রকাশ করেছে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা এউএনএইচসিআর। টানা তিন দিন বৃষ্টিতে ২৭৩ আশ্রয়স্থল নষ্ট এবং ১১ জন আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন ইউএসএইচসিআর এর মুখপাত্র চার্লি ইয়াক্সলি। শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে একথা জানান তিনি।
চার্লি ইয়াক্সলি জানান, বিগত ৭২ ঘণ্টায় শিবির এলাকায় সাড়ে তিনশো মিলিমিটারের বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে। সামনের সপ্তাহে বৃষ্টিপাত আরও বাড়বে। আগামী চারমাস চলবে বর্ষা মৌসুম।
তিনি জানান, প্রাথমিক খবর অনুযায়ী বৃষ্টিপাতের কারণে ২৬টি ভূমিধসের ঘটনা ঘটেছে। জরুরি সহায়তার জন্য শরণার্থী স্বেচ্ছাসেবকদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। আমরা অস্থায়ীভাবে ২ হাজার ১৩৭ জনকে সরিয়ে নিয়েছে। সতর্কামূলক ব্যবস্থা বা বাসস্থান ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ায় তাদের সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।
ইউএনএইচসিআর এর তথ্য মোতাবেক ২০১৯ সালের একশন প্লান অনুযায়ী অনুযায়ী বাংলাদেশের রোহিঙ্গা মানবিক সংকট মোকাবিলায় ৯২ কোটি মার্কিন ডলার প্রয়োজন। তবে এর মধ্যে মাত্র এক তৃতীয়াংশের সংস্থান করা গেছে।
মিয়ানমারের রাখাইনে বসবাস করা রোহিঙ্গাদের ওপর সেনাবাহিনীর হাতে নির্যাতিত হয়ে ২০১৭ সালের আগস্টে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় দশ লক্ষাধিক রোহিঙ্গা। বর্তমানে কক্সবাজারের বিভিন্ন শরণার্থী শিবিরে বসবাস করছে বিশাল সংখ্যক শরণার্থী। বছরের অন্যান্য সময়ে কিছুটা স্বাভাবিক বসবাস করলেও বর্ষা মৌসুমে তাদের কষ্ট অবর্ণনীয় হয়ে ওঠে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: