ভারতে মাদ্রাসা থেকে চার সন্দেহভাজন রোহিঙ্গা জঙ্গি গ্রেপ্তার

ভারতের উত্তর প্রদেশের শামলি জেলার এক মাদ্রাসা থেকে জঙ্গি সন্দেহে চার রোহিঙ্গাকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। আটক ব্যক্তিদের থেকে পাসপোর্ট, সংযুক্ত রাষ্ট্রের শরণার্থী প্রমাণপত্র, দুইটি ভারতীয় আধার কার্ড, দুটি ব্যাংকের পাস বই, একটি প্যান কার্ড, ৪টি মোবাইল ফোন এবং আট হাজার ৩০টাকা পুলিশ উদ্ধার করেছে।
আটক হওয়া চারজনই মাদ্রাসায় অবৈধভাবে বসবাস করছিল। তারা নিজেদের পরিচয় গোপন রেখে মাদ্রাসায় বাস করে। রোহিঙ্গাদের পাশাপাশি মাদ্রাসা পরিচালনায় সংশ্লিষ্ট তিন জনকেও পুলিশ আটক করেছে।
আটক এক যুবকের নাম আবদুল মাজিদ। ২০০১ সালে সে তার বাবা ও ভাইসহ মায়ানমার থেকে বাংলাদেশ হয়ে কলকাতায় বসবাস শুরু করে। পরে শামলিতে থাকা শুরু করে। ২০০৪ সালে ভুয়া আধার কার্ড এবং প্যান কার্ড তৈরি করে। পরে সে ওই কার্ড দিয়ে এসবিআই ও পিএনবি ব্যাঙ্কে দুটি অ্যাকাউন্ট খুলে।
তারপর ২০১৬ সালে দারুল উলুম জালালাবাদ মাদ্রাসায় শিক্ষক হিসেবে বাচ্চাদের পড়ানো শুরু করে। এরই মধ্যে মায়ানমারে থাকা তিন যুবকের সাথে তার পরিচয় হয়। মজিদের সহায়তায় মায়ানমার থেকে ভারতে এসে অবৈধ ভাবে বসবাস শুরু করে দেয়।

Leave a Reply

%d bloggers like this: