রামুতে গর্ভবতী ভাতা বিতরণ নিয়ে চরম অনিয়ম,দুর্নীতি রুখবে কে!!

“এস এম হুমায়ুন কবির ” রামু মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্য্যালয়ের আওতাধীন গর্ভবতী ভাতা প্রদান কালে খোদ সোনালী ব্যাংক কর্তৃপক্ষ ও মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ের প্রতিনিধি সাদেকা বেগম পরষ্পর যোগসাজসে প্রতিজনের নিকট থেকে (১০০+২০) একশত বিশ টাকা করে ঘুষ বানিজ্যের গুরুতর অভিযোগ পাওয়া গেছে।বিষয় টি নিয়ে জনমনে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।আবার বেশ কয়েকজন কে গর্ভবতী ভাতা একাউন্টে এখনো জমা হয় নাই বলে সারা দিন বসিয়ে রেখে তাড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।আজ ১১ জুলাই সোনালী ব্যাংক, রামু শাখায় বিতরণ কালে রামু উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার প্রতিনিধি হিসাবে যে ভদ্র মহিলা (সাদেকা বেগম) উপস্থিত ছিলেন তার বিরুদ্ধ চরম দুর্ব্যবহারের গুরুতর অভিযোগ পাওয়া গেছে।অথচ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে আর্থিক সহযোগিতা দিয়ে স্বচ্ছলতা আনার ব্যাপক তোড়জোড় সর্ত্বে এমন নৈরাজ্য সংশ্লিষ্ট মহল কে ভাবিয়ে তুলেছে। এ ব্যাপারে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের রামু উপজেলার অফিস সহকারি সাদেকা বেগমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ না করায় বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি। বিষয় টি জনগুরুত্বপূর্ণ বিষয় বিধায় মান্যবর রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার, রামু উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা,জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা, কক্সবাজার জেলা প্রশাসক, রামু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, সর্বোেপরি কক্সবাজার – ৩ আসনের মাননীয় জাতীয় সংসদ সদস্যের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: