রিফাত হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার মিন্নি

বরগুনায় রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে গ্রেপ্তার দেখিয়েছে পুলিশ।
বরগুনা পুলিশ সুপার (এসপি) মারুফ হোসেন তাকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
তিনি মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে বলেন, রাত ৯টায় রিফাত হত্যা মামলায় মিন্নিকে গ্রেপ্তার করা হয়।
এর আগে সকালে রিফাত শরীফ হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষী স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির জবানবন্দি রেকর্ড ও তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ লাইনে নেয়া হয়।
মঙ্গলবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে বরগুনা পৌর শহরের মাইঠা এলাকার মিন্নির বাবার বাড়ি থেকে তাকে পুলিশ লাইনে নেয়া হয়।
মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর এ কথা জানান। তিনিও মিন্নির সঙ্গে পুলিশ লাইনে গেছেন।
মিন্নির বাবা বলেন, আসামি শনাক্ত করার কথা বলে সকালে পুলিশের একটি দল মিন্নিকে পুলিশ লাইনে নিয়ে আসে।
মঙ্গলবার রাতে মারুফ হোসেন বলেন, দীর্ঘ সময় জিজ্ঞাসাবাদের পর রিফাত হত্যায় তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির সংশ্লিষ্টতা প্রাথমিকভাবে পাওয়া গেছে।
২৬ জুন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে রামদা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে রিফাত শরীফকে। তার স্ত্রী আয়েশা আক্তার মিন্নি হামলাকারীদের সঙ্গে লড়াই করেও তাদের দমাতে পারেননি। একাধারে রিফাতকে কুপিয়ে বীরদর্পে অস্ত্র উঁচিয়ে এলাকা ত্যাগ করে হামলাকারীরা। তারা চেহারা লুকানোরও কোনো চেষ্টা করেনি।
গুরুতর আহত রিফাতকে এদিন বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।
এ ঘটনায় রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
শনিবার রিফাত শরীফের বাবা আবদুল হালিম দুলাল শরীফ বরগুনা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে মিন্নির গ্রেপ্তার দাবি করেন। তিনি কিছু ভিডিও’র কথা উল্লেখ করে বলেন, রিফাত হত্যায় মিন্নি জড়িত।
এরপর রোববার স্থানীয় এমপি শম্ভু দেবনাথের ছেলে সুমন দেবনাথ ও রিফাতের বাবা মিন্নিকে গ্রেপ্তার দাবিতে মানবন্ধন করেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: