রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট দিলে কঠোর ব্যবস্থা: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশি হিসেবে পাসপোর্ট পেতে যারা সহযোগিতা করছেন তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। তিনি বলেন, কোনোভাবেই এই দুর্নীতি বরদাস্ত করা হবে না।
শুক্রবার (২৬ জুলাই) সকালে সিলেট জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে ‘স্বেচ্ছাধীন তহবিল’ থেকে অনুদান প্রদান অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, এরইমধ্যে সৌদি আরবসহ বিভিন্ন দেশে পাসপোর্ট দেওয়ার কাজ করেন এমন কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। আরও যারা জড়িত রয়েছেন তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে। এমন ঘটনার খবর পেলেই সাথে সাথেই শাস্তির খড়গ নামবে জড়িতদের বিরুদ্ধে।
ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশি পাসপোর্ট নেয়ার বিষয়টি বেশি ঘটেছে ২০০১ ও ২০০৩ সালের দিকে। তবে সম্প্রতিও যে ঘটছে না, তা হলফ করে বলতে পারিনা। কেননা সব স্থানেই দুষ্ট লোক আছে, যারা খুব লোভী। এরাই জন্মনিবন্ধন তৈরি করে দিচ্ছে। এ ধরনের অভিযোগ পাওয়ার সাথে সাথে যার বিরুদ্ধে অভিযোগ আসছে তাকে প্রত্যাহার করে নেয়া হচ্ছে।’
এ বিষয়ে একটি উদাহরণও দেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘সৌদি আরব দূতাবাসে এমন একটি অভিযোগ ছিল। আমরা সাথে সাথেই তাকে প্রত্যাহার করে নিয়েছি। এসব দুর্নীতিতে জিরো টলারেন্স। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে যে কোনো দুর্নীতিতেই জিরো টলারেন্স। আর রোহিঙ্গাদের যারা পাসপোর্ট দেবেন তাদের ছাড় নেই। কোনো তদবির আমরা গ্রহণ করিনা। আপাতত তাদের প্রত্যাহার করে শস্তি দিচ্ছি। তবে দোয়া করেন যেন এই দুষ্ট লোকের সংখ্যা কমে যায়।’

Leave a Reply

%d bloggers like this: