রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত শুরু করবে আইসিসি, তবে…

মিয়ানমারের সংখ্যালঘু মুসলিম রোহিঙ্গাদের ওপর দেশটির সেনাবাহিনী ও উগ্রু বৌদ্ধ গুরুদের গণহত্যা, ধর্ষণসহ নানা নির্যাতনের ইন্টারন্যাশনাল ক্রিমিনাল কোর্টের (আইসিসি) গঠিত তদন্ত দল। তবে এজন্য আইসিসি অনুমতি প্রয়োজন, এজন্য অনুমিত চাওয়া হয়েছে।
বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) আইসিসির ডেপুটি প্রসিকিউটর জেমস স্টুয়ার্ট ঢাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন।
জেমস স্টুয়ার্ট বলেন, ‘অক্টোবর শেষ হওয়ার পরপরই আমরা তদন্ত শুরুর অনুমতি চেয়েছি। যদি আমাদেরকে প্রি-ট্রায়াল চেম্বার অনুমতি দেয় তবে অতি দ্রুত আমাদের তদন্ত শুরু করতে পারবো।’
এ বিষয়ে চুক্তি স্বাক্ষরের জন্য বাংলাদেশের সঙ্গে আলোচনা করতে গত ১৬ জুলাই ডেপুটি প্রসিকিউটরের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল ঢাকায় আসে।
জেমস স্টুয়ার্ট বলেন, ‘যেখানেই আমরা কাজ করি সেখানে একটি সমঝোতা স্মারক সই করা আমাদের একটি সাধারণ প্র্যাকটিস। এর বেশি কিছু আমি বলতে পারবো না। আমরা এই সমঝোতা স্মারক গোপন রাখতে চাই, কিন্তু এটি একটি সাধারণ প্র্যাকটিস।’
আইসিসি মিয়ানমারে তদন্ত করবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমরা মিয়ানমার সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি, কিন্তু তারা এখন পর্যন্ত আমাদের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হয়নি। কিন্তু আলোচনার জন্য আমাদের দরজা খোলা আছে।’
কোর্টের কাছে রোহিঙ্গাদের ফরিয়াদ জমা দেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘প্রি-ট্রায়াল চেম্বার রোহিঙ্গাদের ফরিয়াদ শুনতে অধীর আগ্রহে রয়েছে এবং তদন্ত শুরু করবে কিনা সেটি নির্ধারনের জন্য। যতদিন লাগবে ততদিন, কারণ এটি সহযোগিতা, নিরাপত্তসহ বিভিন্ন বিষয়ের ওপর নির্ভর করে।’
প্রসিকিউটর ফেতু বেনসুদার তদন্ত শুরু করার অনুমতির বিষয়ে তিনি বলেন, ‘বিচারকরা বেনসুদার অনুরোধ বিবেচনা করছে এবং এ বিষয়ে তারা সিদ্ধান্ত দেবেন।’

Leave a Reply

%d bloggers like this: