রোহিঙ্গা শিবিরে বড় চ্যালেঞ্জ জন্মনিয়ন্ত্রণ, অন্তঃসত্ত্বা ৩৪০০০ নারী

কুসংস্কার, ধর্মীয় অন্ধবিশ্বাস এবং পরিবার পরিকল্পনা সম্পর্কে অনাগ্রহের কারণে রোহিঙ্গাদের সন্তান জন্মদানের হার বেশি। এছাড়াও অধিক জনসংখ্যা বেশি ত্রাণ পেতে সহায়ক এবং সামাজিক শক্তি বলে মনে করেন রোহিঙ্গারা। যে কারণে ক্যাম্পগুলোতে দ্রুত বাড়ছে জনসংখ্যা।
তবে এভাবে চলতে থাকলে রোহিঙ্গা শিবিরে জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণই বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াবে। পাশাপাশি ভবিষ্যতে মানবিক সংকট প্রকট হবে।
সম্প্রতি চালানো এক জরিপ বলছে, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নতুন করে সন্তান সম্ভবা হয়েছেন ৩৪ হাজার ৩’শ ৩৮ জন নারী। এ বছরই তাদের অনাগত সন্তানরা পৃথিবীর আলো দেখবে। পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর ওই জরিপ কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এটি এখনও চলমান। গত ২৩শে জুন ওই জরিপের প্রাথমিক পরিসংখ্যানসহ কক্সবাজারস্থ শরণার্থী, ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার কার্যালয়ের একটি হালনাগাদ রিপোর্ট ঢাকায় জমা হয়েছে। সমন্বিত ওই রিপোর্টে সরকারের বিভিন্ন সংস্থার সাম্প্রতিক জরিপ এবং সংগ্রহ করা তথ্যের বিস্তারিত তুলে ধরা হয়েছে। রিপোর্টে বলা হয়েছে- বাংলাদেশে মানবিক কারণে আশ্রয় পাওয়া নিবন্ধিত ১১ লাখ ১৮ হাজার ৫’শ ৭৬ জন রোহিঙ্গার মধ্যে ৭ লাখ ৩৮ হাজার ৮’শ ৫ জন আশ্রয়প্রার্থী বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে ২০১৭ সালের ২৫ শে আগস্টের পর।

Leave a Reply

%d bloggers like this: