‘লঙ্কাওয়াশ’ই হলো বাংলাদেশ

হোয়াইটওয়াশ এড়াতে বাংলাদেশের সামনে লক্ষ্যটা বেশ চ্যালেঞ্জিং ছিল। জিততে হলে করতে হতো ২৯৫ রান। তবে এই রান তাড়া করতে নেমে শুরুতেই চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের সামনে ৪৬ রান তুলতেই তিন উইকেট হারিয়ে ফেলে তারা। ওয়ানডাউনে নামা সৌম্য সরকার ছাড়া অন্য ব্যাটসম্যানরা খুব একটা প্রতিরোধ গড়তে পারেনি। তাই হারের হতাশা নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছে বাংলাদেশকে।
বুধবার কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ হেরেছে ১২২ রানের বড় ব্যবধানে। তিন ম্যাচের এই সিরিজের সবকটি ম্যাচে হেরে তাই বাংলাদেশ হোয়াইটওয়াশ হয়েছে।
এই ম্যাচে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা মোটেও সুবিধা করতে পারেননি। দুই ওপেনার এনামুল হক (১৪) ও তামিম ইকবাল (২) দ্রুত সাজঘরে ফেরেন। গত ম্যাচে অসাধারণ খেলা মুশফিকুর রহিম ফিরেছেন ১০ রান করে। মোহাম্মদ মিঠু্ন (৪) ও মাহমুদউল্লাহও (৯) দ্রুত আউট হন।
সাব্বির রহমান (৭) ও মেহেদী হাসান মিরাজ (৮) চরম ব্যর্থ হয়েছেন। তবে ব্যতিক্রম ছিলেন সৌম্য সরকার। ৮৬ বলে ৬৯ রানের চমৎকার একটি ইনিংস খেলে দলের বিপর্যয়ে দারুণ দৃঢ়তা দেখিয়েছেন তিনি। অসাধারণ এই ইনিংসটি খেলে দলের হারের ব্যবধান কিছুটা কমিয়েছেন। শেষ দিকে তাইজুল ৩৯ রানের হারি না মানা একটি ইনিংস খেলেন।
অবশ্য এই ম্যাচে শ্রীলঙ্কার শুরুটা খুব একটা ভালো হয়নি। দলীয় ১৩ রানে ওপেনার আভিশকা ফার্নান্দোর (৬) উইকেট হারিয়ে বসে।
পরে অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে (৪৬) ও কুসল পেরেরা (৪২) চমৎকার দুটি ইনিংস খেলে দলকে ভালো সংগ্রহের পথ দেখান। তবে দলকে এই বড় সংগ্রহ গড়ে দিতে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখেন। তিনি ৯০ বলে ৮৭ রানের চমৎকার একটি ইনিংস খেলেন।
এ ছাড়া কুসল মেন্ডিস ৫৮ বলে ৫৪ ও দাসুন শানাকা ১৪ বলে ৩০ রান করেন।
বাংলাদেশের বোলাদের হয়ে সবচেয়ে সফল পেসার শিফউল ইসলাম ও সৌম্য সরকার। শফিউল ১০ ওভার বল করে ৬৮ রান খরচায় তিন উইকেট পান। সৌম্যও পান তিন উইকেট। এ ছাড়া রুবেল ও তাইজুল পান একটি করে উইকেট।
এদিকে ম্যাচের বাংলাদেশ একাদশে দুটি পরিবর্তন এনেছে টিম ম্যানেজমেন্ট। চোট পেয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান, তাঁর জায়গায় একাদশে ফিরেছেন পেসার রুবেল হোসেন।
আর অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের জায়গায় এনামুল হককে একাদশে নেওয়া হয়েছে। গত বছরের জুলাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সর্বশেষ ওয়ানডে খেলেছিলেন তিনি।
এর আগে প্রথম ম্যাচে ৯১ রানে এবং দ্বিতীয় ম্যাচে সাত উইকেটে হেরেছে বাংলাদেশ।
বাংলাদেশ একাদশ : তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), সৌম্য সরকার, এনামুল হক, মোহাম্মদ মিঠুন, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, সাব্বির রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, শফিউল ইসলাম, তাইজুল ইসলাম ও রুবেল হোসেন।
শ্রীলঙ্কা একাদশ : দিমুথ করুনারত্নে (অধিনায়ক), কুসল পেরেরা, আভিশকা ফার্নান্দো, কুসল মেন্ডিস, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস, দাসুন শানাকা, শেহান জয়াসুরিয়া, ভানিদু হাসারাঙ্গা, আকিলা দনাঞ্জয়া, কাসুন রাজিথা ও লাহিরু কুমারা।

Leave a Reply

%d bloggers like this: