সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবিতে মস্কোতে বিক্ষোভ, গ্রেফতার অন্তত ১ হাজার

সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবিতে রাশিয়ার রাজধানী মস্কোয় জড়ো হওয়া বিক্ষোভকারীদের ওপর লাঠিচার্জ করেছে পুলিশ। এসময় অন্তত এক হাজার বিক্ষোভকারীকে গ্রেফতার করা হয়। গত কয়েক বছরে এতো মানুষকে একসঙ্গে গ্রেফতারের ঘটনা এটাই প্রথম।
বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শহরের সিটি হল থেকে বিক্ষোভকারীদের টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যান আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। বিক্ষোভকারীরা মেয়রের কার্যালয়ের দিকে এগোতে থাকলে পুলিশ তাদের বাধা দেয় এবং তাদের ওপর লাঠিচার্জ করে। কোনো কর্তৃপক্ষ স্বীকার না করলেও কয়েকজন বিক্ষোভকারীকে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখেছেন বিবিসির প্রতিবেদক। সেইসঙ্গে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর অন্তত দুই সদস্যের চোখে পিপার স্প্রে লেগেছে বলেও জানিয়েছেন তারা।
মোট এক হাজার ৭৪ জনকে গ্রেফতারের কথা জানিয়েছে মস্কো পুলিশ। তবে পর্যবেক্ষকদের দাবি, এক হাজার ১২৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
আগামী ৮ সেপ্টেম্বরের স্থানীয় নির্বাচনে বেশ কয়েকজন প্রার্থী অংশ নিতে পারবেন না বলে জানায় কর্তৃপক্ষ।
এই নির্বাচনে ইচ্ছাকৃতভাবে বিরোধী দলকে বাদ দেওয়া হয়েছে বলে বিরোধীদের অভিযোগ। বিরোধী দলের দাবি, রাজনৈতিক কারণেই তাদের নির্বাচনে অংশ নিতে দেওয়া হচ্ছে না।
কর্তপক্ষ বলছে, যথাযথ বৈধ স্বাক্ষর সংগ্রহ করতে ব্যর্থ হওয়ায় অন্তত ৩০ প্রার্থী নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না। এর পেছনে কোনো রাজনৈতিক কারণ নেই।
মস্কো শহরের মেয়র সেরগেই সোবইয়ানিন বিক্ষোভকারীদের শহরের নিরাপত্তার জন্য হুমকি বলে উল্লেখ করেন। এবং তিনি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখবেন বলেও শহরবাসীকে প্রতিশ্রুতি দেন।
রাশিয়া ইউনাইটেড পার্টির শাসন নিয়ে বিরোধী সমর্থকদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই ক্ষোভ জন্ম নিচ্ছিল। এর মধ্যে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের তীব্র সমালোচক ও বিরোধী দলের নেতা এলেক্সেই নাভালনি শনিবারের বিক্ষোভের ডাক দেওয়ায় তাকে গ্রেফতার করা হয়। দেওয়া হয় ৩০ দিনের কারাদণ্ড।
এলেক্সেই এর ডাকেই শনিবার ২০ হাজারেরও বেশি মানুষ নেমে আসেন রাস্তায়। তাদের দাবি, সুষ্ঠু নির্বাচনের। তবে পুলিশের দাবি, বিক্ষোভকারীদের সংখ্যা সাড়ে তিন হাজারের বেশি হবে না। যাদের মধ্যে ৭০০ জনই ছিলেন বিভিন্ন গণমাধ্যমের সংবাদকর্মী।

Leave a Reply

%d bloggers like this: