ঘুষের ঘটনায় জেল সুপার প্রশান্ত বণিককে জিজ্ঞাসাবাদ

বাসা থেকে ঘুষের টাকা উদ্ধারের ঘটনা তদন্তে চট্টগ্রাম কারাগারের সাবেক ও বরিশালের সিনিয়র জেল সুপার প্রশান্ত কুমার বণিককে জিজ্ঞাসাবাদ করছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।
রোববার দুদকের প্রধান কার্যালয়ে বেলা সোয়া ১২ টা থেকে সংস্থাটির পরিচালক মুহাম্মদ ইউছুফের নেতৃত্বে একটি টিম তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন। টিমের অপর সদস্য হলেন সহকারী পরিচালক সালাহউদ্দিন আহমেদ। জিজ্ঞাসাবাদের বিষয়টি দুদকের জনসংযোগ দপ্তর নিশ্চিত করেছে।
বাসা থেকে ৮০ লাখ টাকা উদ্ধার হওয়ার ঘটনায় সিলেটের ডিআইজি-প্রিজন পার্থ গোপাল বণিকের বিরুদ্ধে গত ২৯ জুলাই মামলা দায়ের করে দুদক। মামলায় তার বিরুদ্ধে সরকারি চাকুরিতে কর্মরত থেকে অর্পিত ক্ষমতার অপব্যবহার করে ঘুষ গ্রহণ করেছেন। মামলার এজাহারে তার বিরুদ্ধে দণ্ডবিধি ১৬১, দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫ (২) ধারা ও মানিলন্ডারিং আইনে অভিযোগ আনা হয়েছে।
গত ২৮ জুলাই বিকেলে ধানমণ্ডির ভূতের গলিতে পার্থ গোপাল বণিকের নিজ ফ্লাট থেকে থেকে ৮০ লাখ টাকা উদ্ধার করে দুদক। এরপরই আটক করা হয় তাকে।
আটকের সময় ডিআইজি পার্থ দাবি করেন, ৮০ লাখ টাকা তার বৈধ আয় থেকে অর্জিত। এরমধ্যে ৩০ লাখ টাকা শাশুড়ি দিয়েছেন, বাকি ৫০ লাখ টাকা সারাজীবনের জমানো টাকা।
ডিআইজি প্রিজন পার্থ কুমার বণিক ২০১৬ সালের ৮ আগস্ট চট্টগ্রামের ডিআইজি হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন। ২০১৮ সালের গত ২৬ অক্টোবর নগদ ৪৪ লাখ ৩৩ হাজার টাকা ও প্রায় পাঁচ কোটি টাকার নথিপত্রসহ ভৈরব রেলওয়ে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন চট্টগ্রামের জেলার সোহেল রানা বিশ্বাস। গ্রেপ্তারের পরপরই পুলিশের কাছে জেলার সোহেল রানা দাবি করেন, উদ্ধার করা টাকার মধ্যে ৫ লাখ টাকা তার এবং বাকি ৩৯ লাখ টাকা কারা বিভাগের চট্টগ্রাম বিভাগের ডিআইজি পার্থ কুমার বণিক ও চট্টগ্রাম কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার প্রশান্ত কুমার বণিকের।

Leave a Reply

%d bloggers like this: