ধোয়া দিয়ে এডিস মশা নিধন সম্ভব নয়, বললেন কলকাতার ডেপুটি মেয়র

ডেঙ্গু প্রতিরোধে ধোয়া দিয়ে এডিস মশা নিধন সম্ভব নয়, ধ্বংস করতে হবে প্রজনন ক্ষেত্র। সারা বছরই বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে চালাতে হবে পরিচ্ছন্নতা অভিযান।
সোমবার (০৫ আগস্ট) দুপুরে ডেঙ্গু প্রতিরোধ ও এডিস মশা নিধনে কার্যকর পদক্ষেপ নিয়ে ঢাকা উত্তরের মেয়র আতিকুল ইসলামের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে এসব পরামর্শ দেন কলকাতার ডেপুটি মেয়র অতীন ঘোষ। এ কাজে কাউন্সিলরদের সম্পৃক্ত করার কথাও বলেন তিনি।
ডেঙ্গু মোকাবিলায় কলকাতার সাফল্যের রহস্য জানতে সেখানকার একদল অভিজ্ঞ কর্মকর্তার সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে বসে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র ও তার দল।
এডিস নিয়ন্ত্রণে নিজেদের পদক্ষেপের কথা বলতে গিয়ে প্রথমেই চমকে দেন সেখানকার কর্মকর্তারা। জানান, ধোঁয়া দিয়ে নয় এডিস নিয়ন্ত্রণে দরকার এর প্রজনন ক্ষেত্র ধ্বংস।
পতঙ্গ বিশেষজ্ঞ ড. দেবাশীষ ঘোষ বলেন, জানুয়ারি মাসে আমাদের র‌্যালি হয়। ফেব্রুয়ারিতে ওয়ার্কশপ করি, এবং সারা বছর ধরেই আমরা মশার উৎস বিনাশের কাজ করি।
তারা বলছেন, গত নয় বছর ধরে তিন স্তরের মনিটরিং সেলের কার্যক্রমে এসেছে সাফল্য। করা হয়েছে আইনের পরিবর্ধন। আর সবার আগে দরকার রাজনৈতিক সদিচ্ছা।
কলকাতা ডেপুটি মেয়র অতীন ঘোষ বলেন, আমাদের থেকে জনসংখ্যা অনেক বেশি ঢাকা শহরে। মশা প্রতিরোধ করাকে মেয়ররা গুরুত্ব দিয়েছেন। তাদের মশা মারার পরীক্ষা ব্যবস্থা আধুনিকায়ন করার উদ্যোগ নিয়েছেন।
পরে সংবাদ সম্মেলনে উত্তরের মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, এসব পরামর্শ কাজে লাগিয়ে ডেঙ্গু মোকাবিলায় দরকার সবার সচেতনতা।
তিনি বলেন, বার বার আমরা যখন বলছিলাম আমরা ওষুধের জন্য কি করবো। তখন তারা বলেছেন, ওষুধের পাশাপাশি মশকের প্রজনন কোথা থেকে হয়, মশকের সেই প্রজনন স্থান ধ্বংস করতে হবে।
প্রয়োজনে কারিগরি ও নীতিগত জায়গাও পরিবর্তন করা হবে বলে জানান ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম।

Leave a Reply

%d bloggers like this: