কাশ্মীরের অবরুদ্ধ পরিস্থিতি নিয়ে জাতিসংঘের গভীর উদ্বেগ

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরে কঠোর কড়াকড়ি আরোপ ও অবরুদ্ধ পরিস্থিতি এক মাস পার হয়ে গেল। অঞ্চলটির ওপর এমন কড়াকড়ি আরোপে গভীর উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘ।
এনডিটিভি জানায়, সোমবার জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলের ৪২ তম অধিবেশনে উদ্বোধনী ভাষণে কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে এমন প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করেন কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট মিশেল মিশেল বাচলেট
তিনি বলেন, “ইন্টারনেট যোগাযোগ ও শান্তিপূর্ণ সমাবেশে বিধিনিষেধ আরোপ এবং স্থানীয় রাজনৈতিক নেতা–কর্মীদের আটক করে রাখাসহ কাশ্মীরিদের মানবাধিকার নিয়ে ভারত সরকারের সাম্প্রতিক পদক্ষেপের প্রভাব সম্পর্কে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছি।”
তিনি বলেন, “যদিও আমি ভারত ও পাকিস্তান উভয় সরকারকেই মানবাধিকারের প্রতি সম্মান প্রদর্শন ও একে সুরক্ষিত করার জন্য অনুরোধ করে যাচ্ছি। তবুও আমি বিশেষ করে ভারতের কাছে কাশ্মীরের বর্তমান অবরুদ্ধ পরিস্থিতি বা কারফিউকে শিথিল করার জন্য এবং মানুষের মৌলিক পরিষেবাগুলো নিশ্চিত করতে আবেদন করেছি। যে সব নেতারা আটক রয়েছেন তাদের মানবাধিকারের প্রতিও যাতে শ্রদ্ধা জানানো হয় সেই অনুরোধ করছি।”
তিনি আরও বলেন, “কাশ্মীর নিয়ে সিদ্ধান্তের জন্য এর জনগণের সঙ্গে পরামর্শ করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ, বিশেষ করে যেসব সিদ্ধান্তে তাদের ভবিষ্যতের ওপর প্রভাব পড়বে।”
গত ৫ আগস্ট নয়াদিল্লিতে সংবিধানের ৩৭০ ধারা তুলে নিয়ে জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেয় বিজেপি সরকার।
তার আগের দিন থেকে অঞ্চলটিতে কঠোর সামরিক নিরাপত্তা ও কারফিউ জারি করা হয়। ইন্টারনেট সার্ভিস ও মোবাইল নেটওয়ার্ক বন্ধ করে দেওয়া হয়। সাবেক দুই মুখ্যমন্ত্রী সহ গ্রেপ্তার করা হয় ৪০০ এরও অধিক স্থানীয় রাজনৈতিক নেতাকে।
গত ৩৫ দিনে জম্মু-কাশ্মীর থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে চার হাজারেরও অধিক মানুষ। এখন পর্যন্ত কাশ্মীরের সঙ্গে পুরো বিশ্বের যোগাযোগ কার্যত বিচ্ছিন্ন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: