কৌতুক-31

সরকারী কলেজের হোস্টেলের ওয়েটিং রুম এ দু-অভিভাবকের আলাপ ক্রমে ঘনিষ্ঠ হয়ে ওঠে। 
একজন বলেন, “আমার ছেলে এমন কঠিন ইংরেজিতে চিঠি লেখে যে তার জন্য ডিকশনারী দেখতে হয়।” 
অন্যজন বলেন, “তবু তো আপনি ডিকশনারী দেখেই রেহাই পান, আমার ছেলের চিঠি পেলে আমাকে ব্যাংকের পাশ বই দেখতে হয়।” 

Leave a Reply

%d bloggers like this: