কেরানীগঞ্জে অগ্নিকাণ্ড : নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৯

ঢাকার কেরানীগঞ্জের প্লাস্টিক কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে নিহতের সংখ্যা ৯-এ দাঁড়িয়েছে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের (ঢামেক) বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ ১২ ডিসেম্বর, বৃহস্পতিবার ভোররাত ৪টা পর্যন্ত তাদের মৃত্যু হয়।
১১ ডিসেম্বর, বুধবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে কেরানীগঞ্জের চুনকোটিয়া হিজলতলা এলাকার ‘প্রাইম অনটাইম প্লাস্টিক’ নামের ওই কারখানায় আগুন লাগে। গ্যাস রুম থেকে হঠাৎই ছড়িয়ে পড়ে এই আগুন।
ভয়াবহ এই অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ হন ৩৪ জন। স্থানীয়রা তাদের আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে ঢামেকে নিয়ে যায়। ঘটনাস্থলেই অগ্নিদগ্ধ হয়ে একজন মারা যান।
এ ঘটনায় নিহতরা হলেন- ইমরান, বাবুল, রায়হান, খালেক, সালাউদ্দিন, সুজন, জিনারুল ইসলাম, আলম ও জাকির হোসেন।
ঢামেক বার্ন ইউনিটের আবাসিক সার্জন (আরএস) ডা. আরিফুল ইসলাম নবীন এ সংবাদের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বুধবার রাত থেকে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত অগ্নিদগ্ধদের মধ্যে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আটজনের মৃত্যু হয়েছে।
ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাজ্জাদ হোসাইন বলেন, ‘কিভাবে সেখানে আগুনের সূত্রপাত হয়েছিল, তা এখনও স্পষ্ট নয়। অগ্নিকাণ্ডের কারণ এবং ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণে একটি কমিটি গঠন করা হবে।’
তবে প্লাস্টিক গলানোর বয়লার মেশিন বিস্ফোরিত হয়ে আগুন সূত্রপাত হতে পারে বলে প্রাথমিক ধারণার কথা জানিয়েছেন ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক কাজী নাজমুজ্জামান।
প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ২৮ নভেম্বর কেরানীগঞ্জের ওই কারখানাটিতে প্রথমবার আগুন লাগে। এরপর এ বছরের ২৫ এপ্রিল আবারো দ্বিতীয় দফায় অগ্নিকাণ্ড ঘটে এই কারখানায়।
দুইটি অগ্নিকাণ্ডে কারখানার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হলেও তাতে কোনো প্রাণহানি হয়নি। সর্বশেষ গতকালকের অগ্নিকাণ্ডে এখনো পর্যন্ত ৯ জন প্রাণ হারিয়েছেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: