কোরআনসহ ইসলামি বই ছাপানোর নামে কোটি কোটি টাকা লোপাট

২০০৯ সালে নিয়োগের পর থেকে গত ১০ বছরে ব্যাপক দুনীতি, স্বজনপ্রীতি, ক্ষমতার অপব্যবহার ও অর্থ আত্মসাতের মাধ্যমে কোটি কোটি টাকার লোপাটের অভিযোগে অভিযুক্ত আলোচিত ইসলামিক ফাউন্ডেশনের (ইফা) মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজাল।
বিচার বিভাগীয় সাবেক এই কর্মকর্তা পবিত্র কোরআন ও ইসলামিক বই ছাপানোর নামে ১৭ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। এর মধ্যেই শুধুমাত্র পবিত্র কোরআনের কপি কম ছাপিয়ে প্রায় ২ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন ইফার মহাপরিচালক। মসজিদভিত্তিক গণশিক্ষা প্রকল্পের অধীনে ৯৯ হাজার ৬৮০ কপি কম ছাপানো হয়।
তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠার পর সিভিল অডিট অধিদফতরের বিশেষ নিরীক্ষায় দুর্নীতির এই চিত্র উঠে আসে। গত ১০ অক্টোবর পর্যন্ত চলা এই নিরীক্ষার প্রতিবেদন গত ২৪ নভেম্বর ধর্ম মন্ত্রাণালয়ে এগ্রিড মিটিংয়ের মধ্য দিয়ে চূড়ান্ত করা হয়েছে বলে জানা গেছে।
সিভিল অডিট অধিদফতরের উপ-পরিচালক এম এম নিয়ামুল পারভেজের নেতৃত্বে ৬ সদস্যের টিম এই নিরীক্ষা পরিচালনা করে। এতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ১২টি কার্যালয়ের ২০০৯-১৮ সালের বরাদ্দ ও ব্যয় খতিয়ে দেখা হয়।
আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর ২০০৯ সালে তাকে নিয়োগ দেয়া হয়। নিয়োগের পর ২০১৮ সাল পর্যন্ত ৯৬টি খাতে সর্বমোট ৭৯৬ কোটি ৭৮ লাখ টাকার অনিয়ম ধরা পড়ে। তার মধ্যে কুরআন শরিফ মুদ্রণসহ পাঁচটি খাতে ১৬ কোটি ৭০ লাখ ৪ হাজার টাকা আত্মসাৎ হয়েছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই টিমের এক সদস্য জানান, তার বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠতে তার জবাব চাওয়া হয়। এর মধ্যে তিনি প্রায় ৮২ কোটি টাকা সরকারি কোষাগারে ফেরত দিয়েছে। এরপরও তার আরও অনিয়ম খোঁজে অডিট টিম চূড়ান্ত করা হয়। এতে অনিয়মের খাতের সংখ্যা কমে আসলেও অনিয়মের টাকার অংকে বড় কোনো পরিবর্তন আসেনি।
কোরআনের কপি ছাড়াও আরবি শিক্ষাবিষয়ক টিচার্স গাইড, অনুশীলন ও ড্রয়িং খাতা ইত্যাদি গাইড বের না করে ১০ কোটি ৩৭ লাখ টাকা, সন্ত্রাস প্রতিরোধ ও সামাজিক সমস্যা সমাধানে ইসলাম শীর্ষক কর্মসূচির পুস্তক মুদ্রণ ও বাঁধাই বাবদ ৩ কোটি ২৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা, উগ্রবাদ ও সন্ত্রাস প্রতিরোধ কর্মসূচির বরাদ্দ থেকে ইফা প্রেসকে প্রদানের নামে ৩০ লাখ ৫৩ হাজার ৭২৯ টাকা ও বইয়ের রয়্যালিটির নামে ১৫ লাখ টাকাসহ কোটি কোটি টাকার অনিয়মের প্রমাণ পাওয়া গেছে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: