বিজিবি সদস্যকে কোর্ট মার্শালের মুখোমুখির বিষয়টি জানা নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

‘বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করে ভারতীয় জেলেেদর ছাড়িয়ে নিতে এসে বিজিবি’র গুলিতে এক বিএসএফ সদস্য নিহতের ঘটনায় অভিযুক্ত বিজিবি সদস্যকে কোর্ট মার্শালে মুখোমুখি হতে হচ্ছে’ এমন সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে ভারতের বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে।
এ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, ‘ভারতীয় গণমাধ্যম যেগুলো বলছে সেটা সম্পর্কে আমাদের জানা নেই। আমরা জানি ততটুকুই যেটা ভারত অফিসিয়ালি আমাদের জানাবে। ভারতের গণমাধ্যম কি বলছে আমরা তা অফিসিয়ালি জানি না। অফিসিয়ালি আমরা যখন জানবো তখন অফিসিয়ালি ব্যবস্থা নেবো।’
মঙ্গলবার (৩ ডিসেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে নিজ দফতরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা জানান।
এনআরসি আতঙ্কে সীমান্তে অনুপ্রবেশ নিয়ে আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘ভারতের আসাম থেকে বাংলাদেশে পুশইনের খবরে আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই। বাংলাদেশের নাগরিক ছাড়া কাউকে দেশে ঢুকতে দেয়া হবে না। যারা আসছে তারা বাংলাদেশের নাগরিক হলে আমরা রিসিভ করতে পারি। নইলে কোনোক্রমে গ্রহণ করব না।’
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা হয়তো দেখেছেন কিছু কিছু বাঙালি, এরা বাংলাদেশি কি-না আমি সঠিকভাবে এখনও নিশ্চিত নই। বাঙালিদের ভেতরে ঢোকানোর চেষ্টা করেছেন। আমাদের বিজিবি কয়েক জায়গা থেকে এদেরকে ঢুকতে দেয়নি, অ্যালাউ করেনি। এদের সংখ্যা হাজার হাজার নয়, কয়েকশ।’
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘অনেকে বিভিন্ন সময় ভারতে যায়, ভিসার মেয়াদ শেষ হলে তাদের অনেক সময় পাঠিয়ে দেয়। এক্ষেত্রে ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গিয়েছে, কিন্তু আসতে দেরি হয়েছে এমন জটিলতার ক্ষেত্রে আমাদের নাগরিকদের অবশ্যই রিসিভ করব। তবে এতে আতঙ্কের কোনও কারণ নেই।’
গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামির মাথায় আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন আইএসের টুপির বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘আইএসের টুপির বিষয়ে তদন্ত হচ্ছে। কিভাবে আসল আর কিভাবে গেলো সেটি আমরা জানতে চাচ্ছি। কেউ না কেউ তো দিয়েছে, কে দিয়েছে সেটি আমরা জানতে চাই, বন্দিকে যখন নিয়ে গেছে তখনও জনগণের ভেতর দিয়েই গেছে। আমরা যতটুকু দেখেছি কারাগার থেকে এমন কিছু আসেনি, কারা কর্তৃপক্ষ বলছে। পুলিশ বলছে তারাও এটা সাপ্লাই হতে দেখেনি। কাজেই কিভাবে আসলো তদন্তের বাইরে আমরা কিছু বলতে পারবো না। তবে সবই বেরিয়ে আসবে।’
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এটি কোনও এলার্মিং নয়। কাপড় মাথায় দিয়েছে, এতে এলার্মিংয়ের কি বিষয় আছে? তারা সব সময় বলছে তারা সেই মতাদর্শী। আমরা সব সময় বলেছি আইএস আমাদের দেশে নেই। এরা সবাই হোম মেইড জঙ্গি। তারা আইএসের সঙ্গে কানেক্ট হতে চেয়েছে সব সময় বলেছে। ঘটনার সময়ও আইএস তাদের সংগঠন বলেছে।’
আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘দেশে আইএসের কোন ঘাটি নেই, কোন কিছুই নেই। এই মতাদর্শ যারা বিশ্বাস করেন বা বলেন তাদের সবাই ধরা পড়েছে। তারা টুপি পকেটে নিয়ে রেখেছে বা কিভাবে পেয়েছে সেটি না জেনে অফিসিয়ালি বলতে পারছি না। পরবর্তীতে আমরা এটি জানিয়ে দেবো।’

Leave a Reply

%d bloggers like this: