শারীরিক অবস্থার অবনতি, চিন্তিত এন্ড্রু কিশোরের পরিবার

ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করে দুই মাস ধরে সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত কণ্ঠশিল্পী এন্ড্রু কিশোর। নিয়মিত কেমোথেরাপি দেওয়ার পর একটু একটু করে সেরে উঠছিলেন। কিন্তু গত এক সপ্তাহ ধরে এন্ড্রু কিশোরের শারীরিক অবস্থা বেশি একটা ভালো যাচ্ছে না।
তার শারীরিক অবস্থার কিছুটা অবনতি হয়েছে। প্রিয় এই মানুষটিকে নিয়ে চিন্তিত তার পরিবার। এমনটাই জানিয়েছেন এন্ড্রু কিশোরের শিষ্য মোমিন বিশ্বাস। দেশ থেকে নিয়মিতই গুরুর খোঁজখবর রাখেন তিনি।
এন্ড্রু কিশোরের বর্তমান অবস্থা নিয়ে মোমিন বিশ্বাস বলেন, ‘সপ্তাহ খানেক থেকে ভালো নেই দাদা। চিকিৎসকরা নতুন কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে দিয়েছেন। এখনও রিপোর্ট এসে পৌঁছায়নি। এছাড়া রোববার তাকে এক ব্যাগ রক্তও দিতে হয়েছে।’
মোমিন বিশ্বাস জানান, এ পর্যন্ত তিনটি সাইকেলের কেমোথেরাপি সম্পন্ন হয়েছে। এখন চলছে চতুর্থ সাইকেলের কেমোথেরাপি। প্রথম তিন সাইকেলে ১২টি ও চতুর্থ সাইকেলে দুটি মোট ১৪টি কেমোথেরাপি দেওয়া শেষ হয়েছে। চতুর্থ সাইকেলের আরও দুটি থেরাপি বাকি। এরপর আরও দুটি সাইকেল সম্পন্ন করতে হবে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, সব মিলিয়ে ২৪টি কেমোথেরাপি দিতে হবে দাদাকে। মোটি ১০টি কেমোথেরাপি দেওয়া বাকি এখনো!
এন্ড্রু কিশোরের চিকিৎসায় প্রত্যেকটি কেমোর জন্য লাগছে ৯ লাখ টাকা। এরই মধ্যে এক কোটিরও বেশি টাকা খরচ করেছে তার পরিবার। এরই মধ্যে চিকিৎসার খরচ জোগাতে নিজের রাজশাহী শহরে ফ্ল্যাটটিও বিক্রি করে দিয়েছেন এন্ড্রু কিশোর। এছাড়া কিংবদন্তি এই শিল্পীর ক্যান্সারের চিকিৎসার জন্য সম্প্রতি সংগ্রহ হয় ৫০ লাখ টাকা। প্রয়োজন আরও অনেক টাকা।

Leave a Reply

%d bloggers like this: