সাতকানিয়ায় স্বাস্থ্য কর্মকর্তা কোয়ারেন্টাইনে, ইউএনওসহ ৮ জনের নমুনা সংগ্রহ

সাতকানিয়ায় করোনা শনাক্ত দুজনের সংস্পর্শে গিয়ে নমুনা সংগ্রহ টিমে থাকা চিকিৎসক উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আবদুল মজিদ ওসমানীকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে।

গত রোববার রাত থেকে সিভিল সার্জনের নির্দেশে স্বাস্থ্য কর্মকর্তা হোম কোয়ারেন্টাইনে চলে যান। এছাড়া লকডাউনে গিয়ে সংস্পর্শ হওয়ার কারণে সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ ৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

(১৩ এপ্রিল) সোমবার তাদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য ফৌজদারহাটে অবস্থিত বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ট্রফিক্যাল আ্যন্ড ইনফেকশাস ডিজিজেজ (বিআইটিআইডি) পাঠানো হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা নুর-এ- আলম বলেন, ‘উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জানিয়েছেন রবিবার করোনা শনাক্ত হওয়া রোগীদের সাথে তারা দুই ডাক্তার ও ৫ স্টাফের সংস্পর্শ হয়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আবার আমার সাথে থেকে দীর্ঘক্ষণ কাজ করেছেন। ফলে সতর্কতার জন্য আগেভাগে নমুনা দিয়ে দিয়েছি। নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট হাতে পেলে নিশ্চিত হয়ে কাজ করতে পারবো। না হলে আমাদের সংস্পর্শে এসে অন্য লোক আক্রান্ত হওয়ার ভয় থেকে যাচ্ছে।’

সাতকানিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আবদুল মজিদ ওসমানী বলেন, ‘রবিবার করোনা শনাক্ত হওয়া দুই ব্যক্তিকে আগের দিন হাসপাতালে চিকিৎসা এবং তাদের নমুনা সংগ্রহের সময় আমরা দুইজন ডাক্তার ও ৫ জন স্টাফের সংস্পর্শ হয়েছে। পরে আমি আবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নূর এ আলমের সাথে থেকে কাজ করেছি। আমার সাথে সংস্পর্শ হওয়া রোগীর করোনা শনাক্ত হওয়ায় সতর্কতার জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, আমরা দুইজন চিকিৎসক ও ৫ জন স্টাফের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠিয়েছি। নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর বুঝতে পারবো কোনো সমস্যা হয়েছে কি না। এছাড়া আক্রাদের সংস্পশে হওয়ার কারণে সতর্কতার জন্য বাসায় হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছি।’

Leave a Reply

%d bloggers like this: