৭০ বছরে সবচেয়ে আর্থিক সংকটের মুখোমুখি সৌদি আরব

বিশ্বজুড়ে চলছে করোনার মৃত্যুমিছিল। সংক্রমণ ঠেকাতে লকডাউনের পথে হাঁটছে বহু দেশ। গাড়ি-ঘোড়া চলছে না, ব্যবসা, কাজকর্ম শিকেয় উঠে বেহাল অর্থনীতির অবস্থা। এহেন পরিস্থিতিতে প্রবল ধাক্কা খেয়েছে সৌদি আরব।
তেল নির্ভর দেশটির রপ্তানিতে বিস্তর প্রভাব ফেলেছে কোভিড-১৯। যে দেশগুলি সৌদি অপরিশোধিত তেলের দিকে তাকিয়ে থাকত, এবার তারাই বরাত বাতিল করছে।
এই অবস্থায় বিশাল বিশাল কন্টেনার জাহাজে পড়ে রয়েহে অপরিশোধিত তেল। বরাত বাতিল হওয়ায় বন্দরে বন্দরে আটকে রয়েছে তেলবাহী জাহাজগুলি। ফলে আপাতত নতুন করে তেলের উৎপাদনও বন্ধ। একই সঙ্গে বন্ধ বিদেশী মুদ্রা আসার পথ। সব মিলিয়ে, করোনার হামলায় গেল গেল রব উঠেছে তেল নির্ভর সৌদি অর্থনীতিতে।
এহেন সঙ্কটে, প্রথম দিকে ব্যয় সংকোচ বাড়িয়ে, সরকারি খরচ কমিয়ে ও তেল উৎপাদন বন্ধ রেখে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান বা এমবিএস। তবে তাতেও মিটছে না সমস্যা। ফলে এবার রিয়েল এস্টেট বিক্রি করে সরকারি পরিকাঠামো বাঁচানোর চেষ্টা করছে ধনকুবের সৌদি রাজপরিবার।
বিগত প্রায় সাত দশকে এই প্রথম বেনজির আর্থিক সংকটের মুখোমুখি হল সৌদি আরব। তেল নির্ভর অর্থনীতি এবং সাম্রাজ্য টিকিয়ে রাখাই বিগত দু’মাসে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। আগামী কয়েক মাসের মধ্যে পরিস্থিতি সম্পূর্ণ স্বাভাবিক হয়ে ফের তেলের বিপুল চাহিদা হবে, এমনটা মনে করার কোনও কারণ এখনই খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

Leave a Reply

%d bloggers like this: