প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলার বিষয়ে যা বললেন গণশিক্ষা সচিব

Stay Home. Stay Safe. Save Lives.
#COVID19

মহামারি করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। এরই মধ্যে ভাইরাসের বিস্তার রোধে দেশের সকল ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের সময় তিন দফা বাড়িয়ে আগামী ৬ আগস্ট পর্যন্ত ছুটি বাড়ানো হয়। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার স্বার্থেই সেপ্টেম্বরের আগে সরকারি প্রাথমিক স্কুলগুলো খুলছে না। যদি পরিস্থিতি স্বাভাবিকের দিকে গড়ায় তাহলে সেপ্টেম্বরের শুরুতে বা মাঝামাঝির দিকে খোলা হতে পারে।
এ বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন বলেন, সেপ্টেম্বরের আগে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছি না। পরিস্থিতি ভালো হলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নেবো। দুই মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’
তিনি আরও বলেন, সেপ্টেম্বরেও যদি প্রতিষ্ঠান খোলা না যায় সে ক্ষেত্রে ভিন্ন চিন্তা করা হবে। সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি যদি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে পারি তাহলে শিক্ষাবর্ষ নিয়েও কোনও সমস্যা হবে না। সেপ্টেম্বরকে সামনে নিয়ে আগাচ্ছি। তবে শিক্ষার্থী ও শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিরাপত্তা আগে। তাদের নিরাপত্তা বিবেচনা করেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।
মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ৬ আগস্ট পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছুটি রয়েছে। এখনও বেশ কয়েকদিন ছুটি রয়েছে। তাছাড়া ঈদের পরও কয়েকদিন পাওয়া যাচ্ছে। এর মধ্যেই সিদ্ধান্ত নিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা বা কবে নাগাদ খোলা যাবে সে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।
শিক্ষাও প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, করোনার ভাইরাসের বিস্তার রোধ ও শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার জন্য গত ১৭ মার্চ থেকে আগামী ৬ আগস্ট পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। এ সময় শিক্ষার্থীদের বাসায় থাকতে বলা হয়েছে। শিক্ষক, শিক্ষা কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে জরুরি কাজ সম্পন্ন করার কথা বলা হয়েছে। ঈদুল আজহার সময় শিক্ষক, শিক্ষা কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের কর্মস্থল ত্যাগ না করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে বলা হয়েছে।
এদিকে ‘বাংলাদেশ জাতীয় শিক্ষা বোর্ড’ নামক ফেসবুক পেজের মাধ্যমে প্রচার করা হচ্ছে ‘ঈদের পর সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে সরকার’। এটি ভিত্তিহীন ও গুজব বলে জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বুধবার (২২ জুলাই) রাতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানায়।
মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল খায়ের বলেন, ‘এ ধরনের মিথ্যা ও ভিত্তিহীন সংবাদের মাধ্যমে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য শিক্ষার্থীদের বিশেষভাবে অনুরোধ করা হচ্ছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় যখনই এ বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেবে, তখন গণমাধ্যমের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের বিষয়টি জানানো হবে।’
আবুল খায়ের জানান, ঈদের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এখন পর্যন্ত কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি। তাছাড়া বাংলাদেশ জাতীয় শিক্ষা বোর্ড নামে কোনও বোর্ড নেই।

Leave a Reply

Stay Home. Stay Safe. Save Lives.
#COVID19

%d bloggers like this: