২০৪০ সাল নাগাদ সমুদ্রে প্লাস্টিক বর্জ্য তিন গুণ হবে: গবেষণা

আগামী দুই দশকে প্লাস্টিক উৎপাদন কমাতে এখনই যথাযথ পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হলে সমুদ্রে ভাসমান প্লাস্টিকের বর্জ্য ও সামুদ্রিক প্রাণী হত্যা তিন গুণ বেড়ে যাবে। বৃহস্পতিবার (২৩ জুলাই) প্রকাশিত নতুন এক গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে। খবর রয়টার্স।
ইন্টারন্যাশনাল সলিড ওয়েস্ট অ্যাসোসিয়েশনের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, করোনা ভাইরাসের সময়ে ওয়ান টাইম প্লাস্টিকের ব্যবহার অনেক বেড়েছে। এশিয়ার সমুদ্রসৈকতগুলোয় মাস্ক ও গ্লাভস ভেসে থাকতেও দেখা যাচ্ছে। এছাড়া পণ্য পরিবহনে ব্যবহৃত প্লাস্টিকের স্তূপও বেড়েছে।
পিউ চ্যারিটেবল ট্রাস্ট ও সিস্টেমিকের যৌথ উদ্যোগে বিজ্ঞানী ও শিল্প বিশেষজ্ঞদের করা এ গবেষণায় যে সমাধান তুলে ধরা হয়েছে, তা মেনে চললে সমুদ্রে প্লাস্টিকের পরিমাণ ৮০ শতাংশ পর্যন্ত কমানো যেতে পারে।
দ্য জার্নাল সায়েন্সে প্রকাশিত গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জরুরি ভিত্তিতে কোনো পদক্ষেপ নেয়া না হলে প্রতি বছর ১ কোটি ১০ লাখ থেকে ২ কোটি ৯০ লাখ টন প্লাস্টিক বর্জ্য সমুদ্রে পতিত হবে। ফলে ২০৪০ সালের মধ্যে অতিরিক্ত ৬০ কোটি টন প্লাস্টিক সমুদ্রে চলে যাবে, যা ৩০ লাখ নীল তিমির ওজনের সমান।
পিউ ট্রাস্টের জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক ও গবেষণাপত্রের অন্যতম লেখক উইনি লাউ বলেন, ‘প্লাস্টিক দূষণ হলো এমন একটি সমস্যা, যার প্রভাব সবার ওপরে পড়ে। এটা আপনার, আমার কিংবা নির্দিষ্ট কোনো দেশের সমস্যা নয়। এটা আমাদের সবার সমস্যা। আমরা যদি কোনো পদক্ষেপ না নিই, তবে এ সমস্যা আরো ভয়াবহ হবে।’

Leave a Reply

%d bloggers like this: