কক্সবাজারের রাস্তা বেহালঃ প্রাণ হাতেই চলছে যাতায়াত!

ইউসুপ নূরী::-

ভরা ভাদ্রেও তেমন বৃষ্টি নেই। তবে যেটুকু বৃষ্টি হয়েছে, তাতেই অবস্থা খারাপ কক্সবাজার রোডের একাংশের। জমা জল আর গর্ত বাঁচিয়ে কোনওরকমে চলছে অটো, বাস, ট্রাক। ভাঙা রাস্তা, গর্ত, জমা জল। আর এসবের মধ্যে দিয়েই চলছে নিত্য যাতায়াত। একাংশে প্রাণ হাতে করে চলছে যাতায়াত। সঙ্গে টানা ট্রাফিক জ্যাম। নাভিশ্বাস নিত্যযাত্রী থেকে গাড়িচালক, সকলের।

সংস্কারের অভাবে বেহাল কক্সবাজার শহরের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটি। কক্সবাজার শহরের মূল প্রবেশপথ লিংকরোড থেকে থার্মিনাল পর্যন্ত দীর্ঘ ২ কিলোমিটার রাস্তাটি চরম বেহাল দশা। গোটা রাস্তায় পিচের আস্তরণ উঠে অংসখ্য খানাখন্দ তৈরি হয়েছে। সাম্প্রতিক বর্ষণে ওই সব গর্তে জল জমে প্রায় ডোবায় পরিণত হয়েছে বলে অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের। যাতায়াত করাই দুষ্কর।
এই রাস্তা দিয়েই নিত্যদিনের যাতায়াত শুধু সাধারণ মানুষ বয় ভোগান্তিতে পড়ছে পর্যটকরা৷

গুরুত্বপূর্ন লিংকরোড-থার্মিনাল রাস্তাটির বেহাল অবস্থার কারণে জ্যাম সৃষ্টি হয় প্রতিদিন । প্রতিদিন এই রাস্তা দিয়ে কমবেশী ৫০হাজারেরও বেশি মানুষ যাতায়াত করেন। চলে অংসখ্য ট্রেকার, বাস ও মিনিবাস।

খানাখন্দে ভরপুর রাস্তাটিতে হাসমেশাই ঘটছে ছোটখাট দুর্ঘটনা। বেহাল রাস্তাটি অবিলম্বে সংস্কারের দাবি তুলেছেন স্থানীয় মানুষজন।নাজনীন সরওয়ার কাবেরী, সাংগঠনিক সম্পাদক কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগ নেত্রী অভিযোগ করে দীর্ঘ কিছুদিন আগেও ফেসবুকে লাইভ করে রাস্তাটি সংস্কারের জন্য আহ্বান করেন৷

অথচ এই রাস্তার ধারেই প্রবেশ করতে হয় পর্যটন নগরী কক্সবাজারে এবং রয়েছে বেশ কয়েকটি প্রাথমিক, উচ্চমাধ্যমিক ও মাদ্রাসা স্কুল, মেডিকেল , কলেজ। প্রতিদিন তাই এই রাস্তা উপরই নির্ভর করেন হাজার হাজার বাসিন্দা।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, বেশ কয়েক বছর আগে থেকেই রাস্তা সংস্করণের নামমাত্র কাজ হচ্ছে বটে । কিন্তু তা এমনই নিম্নমানের যে দিন কয়েক যেতে না যেতেই রাস্তার অবস্থা আগের মত বেহাল দশা৷
কক্সবাজার বিভিন্ন খাতের উন্নয়নে সরকারের নানা পদক্ষেপের কারণে কক্সবাজারে দিন দিন বাড়ছে পর্যটকের সংখ্যা। কিন্তু এই শহরে যানজট এখন ‘বিষফোঁড়ায়’ পরিণত হয়েছে। অপ্রশস্ত একটি রাস্তা দিয়ে সব যান চলাচলের কারণে ভোর থেকেই শুরু হয় যানজট। যা পর্যটকদের কক্সবাজার বিমুখ করছে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্টরা। তবে চলমান এ ভোগান্তি এড়িয়ে পরিচ্ছন্ন পর্যটনের অনুভূতি আনতে শহরের প্রবেশপথ লিংকরোড থেকে কলাতলীর লাবণী পয়েন্ট পর্যন্ত ৮ কিলোমিটার সড়ক চার লেন করার কাজ শুরু করেছেন অনেক আগে থেকে কিন্তুু নিষ্কাশন বা ড্রেনের ব্যবস্হা না করার ফলে বেহাল দশা সড়কের৷ প্রায় ২৮৮ কোটি টাকা ব্যয়ে সড়কটি কলাতলী-বাইপাস-নতুন জেলখানা-পুলিশ লাইন ও বাস টার্মিনাল হয়ে লিংকরোড পর্যন্ত যাবে। ২০১৮ সালের ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে এই কাজের উদ্বোধন করেছেন কক্সবাজার পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান। চলতি বছরেই কাজটি শেষ হবে বলে জানালেও অর্ধেক কাজও সম্ভব হয় নি এখনো।

Leave a Reply

%d bloggers like this: