সেপ্টেম্বরে এইচএসসি পরীক্ষা, পরামর্শ খুঁজছে মন্ত্রণালয়!

করোনা মহামারির কারণে পূর্ব নির্ধারিত এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। স্কুল প্রতিষ্ঠানের ছুটি কয়েক দফা বাড়িয়ে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত করা হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে কবে নাগাদ এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে তা নিশ্চিত করেতে পারছে না কর্তৃপক্ষ। পরীক্ষা না দিতে পেরে বছর হারানোর শঙ্কায় রয়েছেন শিক্ষার্থী ও অভিবাবকরা। এ বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী সম্প্রতি বলছেন ‘আমরা এখনই এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি। কাছাকাছি সময়ে গিয়ে সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে তখন সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।‘
পিএসপি ও জেএসসি পরীক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্তর কথা জানানো হলেও এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত জানায়নি সংশ্লিস্টরা। তবে এইচএসসি পরীক্ষা যে হবে তা নিশ্চিত বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আকরাম আল হোসেন।
তিনি বলেন, এইচএসসি পরীক্ষা বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী ডেকে নিয়ে কথা বলেছেন। জেএসসি ও জেডিসি বিষয়ে কথা হয়েছে। আর এইচএসসি পরীক্ষা দ্রুত সময়ের মধ্যে কীভাবে নেওয়া যায় তার সারসংক্ষেপ তৈরি হচ্ছে। পরীক্ষা কেন্দ্রগুলোতে সামাজিক দূরত্ব মানার বিষয়ে বেশি প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে। সেপ্টেম্বরের মধ্যে চূড়ান্ত প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।
উল্লেখ্য, গত ১ এপ্রিল থেকে সারা দেশে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা থাকলেও করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ২২ মার্চই পরীক্ষা স্থগিত ঘোষণা করা হয়। এরপর কয়েক দফা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়িয়ে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত করা হয়।
এ বিষয়ে গণমাধ্যমে দেয়া সাক্ষাৎকারে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, ‘সব মানুষ এখন করোনা ভাইরাসে আতঙ্কে ও অনিশ্চয়তায় রয়েছে। সব স্কুল-কলেজ বন্ধ। শিক্ষার্থীরা দুশ্চিন্তায়। অনলাইন ও সংসদ বাংলাদেশ টেলিভিশনের মাধ্যমে কিছু কিছু ক্লাস চললেও শিক্ষার্থীরা সেভাবে এগিয়ে যেতে পারছে না। বরং কিছুটা পিছিয়ে পড়ছে। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে শিক্ষার্থীদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে সব ধরনের ব্যবস্থা করা হবে ইনশাল্লাহ্।’
তবে পরিবেশ অনুকূলে এলেই ১৫ দিনের মধ্যে পরীক্ষা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

Leave a Reply

%d bloggers like this: