বদির দুর্নীতির মামলায় একের পর ‘বাগড়া’, এবার সাক্ষী দুদক কর্তাই গরহাজির

টেকনাফের সাবেক সাংসদ আবদুর রহমান বদির বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলায় প্রথম দিনেই ছন্দপতন হল। চার্জ গঠনের মধ্য দিয়ে মামলার আনুষ্ঠানিক বিচার কার্যক্রম শুরু হলেও সাক্ষ্যগ্রহণের প্রথম দিনেই দুদকের উপপরিচালক আবুল কালাম আজাদ সাক্ষ্য দিতে না আসেননি।
এমন অবস্থায় ২০২১ সালের ৩ জানুয়ারি মামলাটির পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ঠিক করেছেন আদালত। আবদুর রহমান বদি টেকনাফ উপজেলার চৌধুরী পাড়া গ্রামের মৃত এজাহার মিয়ার ছেলে।
বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) চট্টগ্রাম বিভাগীয় বিশেষ জজ ইসমাইল হোসেনের আদালতে সাক্ষগ্রহণের দিন ধার্য্য ছিল। জামিনে থাকা আবদুর রহমান বদি এই মামলার একমাত্র আসামি। দুদকের দায়ের করা এই মামলায় মোট ১৮ জন সাক্ষী রয়েছেন।
বিষয়টি নিশ্চিত করে দুদকের স্পেশাল পিপি এডভোকেট কাজী ছানোয়ার আহমেদ লাভলু চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, সাবেক সাংসদ বদির বিরুদ্ধে দুদকের মামলায় বৃহস্পতিবার আবুল কালাম আজাদ নামে দুদকের এক উপপরিচালকের সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য্য ছিল। তিনি উপস্থিত না হওয়ায় সাক্ষ্যগ্রহণ করা যায়নি। তবে আসামি আবদুর রহমান বদি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। আদালত আগামী ৩ জানুয়ারি পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য্য করেছেন।
২০০৭ সালে আবদুর রহমান বদির বিরুদ্ধে দুদকের দায়ের করা মামলায় গত ১৩ সেপ্টেম্বর চার্জ গঠন করা হয়। এর মধ্য দিয়ে বদির বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক বিচার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। গতকাল ১৫ অক্টোবর বদির মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য্য ছিল।
আদালত সূত্রে জানা গেছে, দুদক আবদুর রহমান বদির বিরুদ্ধে ২০০৭ সালে ৩০ ডিসেম্বর ৪৩ লাখ ৪৩ হাজার ৯৯৪ টাকা সম্পদের তথ্য গোপন ও ৬৬ লাখ ৭০ হাজার ২৯১ টাকা জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ এনে ডবলমুরিং থানায় একটি মামলা দায়ের করে।
দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়-২’র তৎকালীন সহকারী পরিচালক মো. আলী আকবর ২৪ জুন ২০০৮ আদালতে এই মামলার অভিযোগপত্র দাখিল করেন।
দুদকের আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আদালতে বারবার সময় চেয়ে এবং এক পর্যায়ে উচ্চ আদালত থেকে স্থগিতাদেশ এনে আবদুর রহমান বদি মামলার কার্যক্রম বিলম্বিত করেন। ২০১৭ সালে উচ্চ আদালত মামলা পরিচালনার ওপর থেকে স্থগিতাদেশ বাতিল করেন।
জ্ঞাত বর্হিভুত সম্পদ অর্জন ও তথ্য গোপন করে বদি দুর্নীতি দমন কমিশন আইন, ২০০৪ এর ২৬(২) ধারায় এটা শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন বলে জানান দুদক কর্মকর্তারা।
-চট্টগ্রাম প্রতিদিন

Leave a Reply

%d bloggers like this: