বহুল প্রতীক্ষিত স্বপ্নের সড়কের কাজ শুরু আজ বিকাল থেকে

আমিরুল ইসলাম মো:রাশেদ::বহুল প্রতীক্ষিত স্বপ্নের সড়কের কাজ শুরু হচ্ছে আজ বিকাল থেকে। খুরুশকুল রাস্তার মাথা থেকে প্রথম ধাপের কাজের সূচনা করবেন উন্নয়নের স্বপ্নদ্রষ্টা কউক চেয়ারম্যান লে.কর্ণেল (অব.) ফোরকান আহমদ এলডিএমসি পিএসসি।

দৈনিক সমুদ্রকন্ঠকে এমনটি নিশ্চিত করেছেন প্রকল্প পিডি লে.কর্ণেল আনোয়ার উল ইসলাম পিএসসি। তিনি জানিয়েছেন,সড়কের খারাপ অবস্থা বিবেচনা করে হলিডের মোড় থেকে হাশেমিয়া মাদ্রাসা পর্যন্ত ৫০ ফুট প্রস্থের প্রথম পর্যায়ের কাজ খুরুশকুল রাস্তার মাথা থেকে শুরু করা হচ্ছে ।

জানা যায়,মানুষের দূর্ভোগ লাঘবে এই সড়কটি প্রশস্তকরণ ও সংস্কারের জন্য তিন বছর আগে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে একটি প্রকল্প ফাইল জমা দেন উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে.কর্ণেল (অব.) ফোরকান আহমদ এলডিএমসি, পিএসসি। ওই সময় প্রকল্পটিতে ২৯৮ কোটি ১৪ লাখ ৮৪ হাজার টাকা ব্যয় ধরা হয়েছিল ।পরে ২০১৮ সালে একনেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রকল্পটির অনুমোদন দেন। কিন্তু নানা জটিলতায় অত্যাধুনিক ওই সড়কটি এতদিন চূড়ান্ত অনুমোদন পায়নি। তবে কউক চেয়ারম্যানের নিরলস পরিশ্রম ও একান্ত প্রচেষ্টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুইভাগে সড়কটির অনুমোদন দেন।তারই ধারাবাহিকতার অংশ হিসেবে আজ খুরুশকুল রাস্তার মাথা থেকে প্রথম ধাপের কাজ শুরু হতে যাচ্ছে।

কউক জানায়, ৫ দশমিক ২ কিলোমিটার অংশে হবে এই সংস্কার ও প্রশস্তকরণের কাজ। হলিডে মোড় থেকে বাস টার্মিনাল পর্যন্ত প্রশস্ত করা হবে এই সড়কটি। সড়কের প্রশস্তকরণের পাশাপাশি দুইপাশে পথচারীদের চলাচলের জন্য ফুটপাত, ফুটওভার ব্রিজ, ড্রেন, ব্রিজ-কালভার্ট, সাইকেলওয়ে নির্মাণ করার কথা রয়েছে। এছাড়া সড়কে সবুজায়ন, দুইপাশে সড়ক বাতি ও সিসি ক্যামেরা এবং ওয়াইফাই সংযোগ থাকবে বলে জানা গেছে।

কউক চেয়ারম্যান লে. কর্ণেল (অব:) ফোরকান আহমদ বলেন, বাংলাদশের রোল মডেল হবে কক্সবাজারের প্রধান সড়ক।সেই লক্ষ্যেই আমরা ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়ে পথচারীদের কষ্টের কথা বিবেচনা করে বেশি ভাঙ্গা অংশ হিসেবে চিহ্নিত খুরুশকুল রাস্তার মাথা থেকে কাজ শুরু করছি। তিনি সড়ক নির্মানে মানুষের সাময়িক কষ্টের জন্য ধৈর্য্য ধারন করার আহবান জানান।

উল্লেখ্য, কক্সবাজার শহরের প্রধান সড়কটি সড়ক ও জনপথ বিভাগের অধিনে ছিল দীর্ঘযুগ ধরে। কিন্তু সড়কটি মানুষের জন্য কষ্টের কারণ হয়ে দাঁড়ালে কউক চেয়ারম্যান কক্সবাজারের সন্তান হিসেবে সড়কটির উন্নয়নের জন্য একটি হাই প্রোফাইল তৈরি করে মন্ত্রনালয়ে জমা দেন।এরপর অনুমোদন না হওয়ার আগেই তড়িঘড়ি করে সড়ক বিভাগ উক্ত সড়কটি কউককে হস্তান্তর করে।এরপর নানা জটিলতায় পড়লে সড়কটির কাজ শুরু করা সম্ভব হয়নি।কিন্তু কউক চেয়ারম্যান সড়কটি কে চলাচলের উপযোগির জন্য একাধিকবার সংস্কার করেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: