হাজী সেলিম পুত্রের হামলায় এখন যেমন আছেন লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফ

পুরান ঢাকার দাপুটে সংসদ সদস্য হাজী সেলিমের পুত্র এরফানের হামলায় আহত নৌবাহিনীর কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফ আহমদ খান এখন স্বাভাবিকভাবে কথা বলার মতো অবস্থায় নেই। হামলায় তার একটি দাঁত পড়ে যাওয়ার পাশাপাশি আরো কয়েকটি দাঁত ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানা গেছে। এছাড়াও তার শারীরে বিভিন্ন স্থানে রয়েছে জখমের চিহ্ন।
একান্ত সাক্ষাৎকারে লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফ আহমদ খান বলেন, আসলে আমি এখন স্বাভাবিকভাবে কথা বলার মতো অবস্থায় নেই। তবে আলহামদুলিল্লাহ্ আগের তুলনায় আমি একটু ভালো আছি। আমি এখন আমার বাহিনীর (নৌ বাহিনীর) হেফাজতে বিশ্রামে আছি। তারা (হাজী সেলিমের ছেলে এরফানসহ তার সহযোগীরা) আঘাত করে আমার একটি দাঁত ফেলে দেয়ার পাশাপাশি বেশ কয়েটি দাঁত ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। এছাড়াও তারা আমার শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করেছে। কেবল তাই নয়, তারা আমার স্ত্রীর গায়েও হাত দিয়েছে। এর বেশি কিছু আর বলতে পারছি না।
এর আগে রোববার (২৫ অক্টোবর) রাতে এরফান সেলিমসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ধানমন্ডি থানায় লিখিত অভিযোগ জানিয়েছিলেন আহত নৌবাহিনীর কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফ আহমদ খান। পরে সকালে এটি মামলা হিসেবে রুজু করা হয়। সে মামলায় গাড়িচালক মিজানুর রহমানকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে একই ঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও ঢাকা-৭ আসনের এমপি হাজী সেলিমের ছেলে মোহাম্মদ এরফান সেলিমসহ তার দেহরক্ষীকে।
এ বিষয়ে ধানমন্ডি থানার ওসি ইকরাম আলী মিয়া জানান, গতকাল রোববার (২৫ অক্টোবর) রাতে রাজধানীর ধানমন্ডি কলাবাগান সিগন্যালের পাশে নৌ বাহিনীর কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফকে মারধর ও হত্যার হুমকির ঘটনা ঘটে। এ সংক্রান্তে থানায় অভিযোগ এলে প্রাথমিক সত্যতা যাচাই শেষে মামলা রুজু হয়।
প্রসঙ্গত, নৌ বাহিনীর ওই কর্মকর্তাকে গতকাল রোববার রাতে রাজধানীর কলাবাগান সংলগ্ন সড়কে মারধরের সংশ্লিষ্ট ভিডিওচিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে চাঞ্চলের সৃষ্টি হয়। এরপরেই অভিযানে নামে র‌্যাব ও পুলিশসহ অন্যান্য গোয়েন্দা বাহিনীগুলো।
থানায় দাখিল করা অভিযোগে ওয়াসিফ আহমেদ উল্লেখ করেছেন, তিনি ও তার স্ত্রী মোটরসাইকেলে যাচ্ছিলেন। সংসদ সদস্য হাজী সেলিমের গাড়ি তার মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়। ধাক্কা সামলে সড়কের পাশে মোটরসাইকেল থেকে নেমে গাড়িটির সামনে দাঁড়িয়ে তাদের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করেন। এ সময় গাড়ি থেকে জাহিদ ও আবু বক্কর সিদ্দিকসহ আরও ২-৩ জন তাকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে, হামলা চালিয়ে দাঁত ফেলে দেয় এবং জখম করে। পরে তাকে ও তার স্ত্রীকে হত্যার হুমকিসহ তুলে নেয়ার হুমকি দেয় তারা। এমন খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে মোটরসাইকেল ও গাড়িটি জব্দ করে ধানমন্ডি থানায় নিয়ে রাখে পুলিশ।
এদিকে সোমবার (২৬ অক্টোবর) দুপুর থেকে লালবাগে হাজী সেলিমের বাসভবনে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সরোয়ার আলমের নেতৃত্বে অভিযান চালাচ্ছে র‌্যাব। আজ বিকেল সোয়া ৫ টায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ঢাকা-৭ আসনের সংসদ সদস্য হাজী সেলিমের ছেলে ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর এরফান সেলিমের ‘চাঁন সরদার দাদা বাড়ি’ থেকে অবৈধভাবে মজুত রাখা বিদেশি মদ ও বিয়ার উদ্ধার করেছে র‌্যাব। একইসঙ্গে বেডরুম থেকে বিপুল পরিমাণ ওয়াকিটকি, ইলেকট্রনিক ডিভাইস এবং ১ টি অস্ত্র জব্দ করা হয়েছে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: