ট্রাফিক পুলিশের গা ছাড়া ভাব, দূর্ভোগে কক্সবাজার শহর

আমিনুল ইসলাম আমিন ॥
পর্যটন শহর কক্সবাজার দিন দিন বসবাসের অযোগ্য হয়ে উঠছে। অতিরিক্ত পর্যটক, রোহিঙ্গাদের নিয়ে কাজ করা বেসরকারি সংস্থার গাড়ী, বৈধ-অবৈধ অটো রিক্সা, ব্যক্তিগত গাড়ী সব মিলে শহরের রাস্তা যেন দুর্ভোগে পরিণত হয়েছে। তবে শহরের প্রদান সড়কের গাড়ীগুলো নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব ট্রাফিক পুলিশের হাতে থাকলেও বর্তমানে তাদের নেই কোন তৎপরতা।
শহরের প্রদান সড়কের হলিডে মোড় থেকে বাজারঘাটা হয়ে বাস টার্মিনাল যাওয়ার পথে যার যেভাবে ইচ্ছে সেভাবে চললেও দায় ছাড়া ভাব নিয়ে বসে আছেন জেলা ট্রাফিক পুলিশের কর্মকর্তারা।
বাজার ঘাটা সড়কে দীর্ঘ যানজটের মধ্যে বসে থাকা কয়েকজন যাত্রী ও চালকদের মতে, নতুন জামাই শ্বশুর বাড়ীতে এসে গা ছাড়া ভাব নিয়ে বসে আছে ট্রাফিক পুলিশের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা। তারা আরও জানান, যে সড়কে আগে বাস টার্মিনাল যেতে ২০ মিনিট লাগতো তা এখন দুইঘন্টার মতো সময় নষ্ট করে। ফলে চাকরিজীবী ও ব্যবসায়ীদের ক্ষতি হচ্ছে কয়েক লাখ টাকা।
বাজারঘাটার দীর্ঘ যানজটের মধ্যে বসে থাকা টমটম চালক হাবিবের মতে, যে সকল অবৈধ টমটম রয়েছে তা আটক করলে সড়কের শৃঙ্খলা ফিরে আসবেই।
এসময় এনজিও সংস্থা আইএমও’র গাড়ী চালক জানান, দীর্ঘ ৩০ মিনিট যানজটে বসে আছেন তিনি। তবে এই পর্যন্ত কোন ট্রাফিক পুলিশের কর্মকর্তা রাস্তায় আসেন নি। এছাড়া সড়কে শৃঙ্খলা যেভাবে নষ্ট হচ্ছে তার দায়-দায়িত্ব কক্সবাজারবাসী নিজেদেরও।
এদিকে কক্সবাজার জেলা পুলিশের সিনিয়র কর্মকর্তা থেকে কনস্টেবল পর্যন্ত বদলির পর নতুন কর্মকর্তারা দায়িত্ব গ্রহণ করার মাস পার হলেও তাদের কাজে নেই কোন অগ্রগতি।
তবে সড়কের এই যানজটের জন্যে অদক্ষ চালকদের দায় দেখছেন বিশেষজ্ঞরা। তাদের মতে, কক্সবাজার সড়ক ইতিমধ্যে চলাচলের উপযোগিতা হারিয়েছে। চলাচলের উপযোগিতা হারানো এই প্রদান সড়কে প্রতিদিন বৈধ-অবৈধ গাড়ি ও চালকদের সংখ্যা লাখ ছড়াচ্ছে। যা ভয়ংকর রূপ নিতে বেশিদিন লাগবে না বলেও মন্তব্য করেন তারা।
তারা আরও বলেন, পর্যটন শহর হিসেবে নিয়মিত বিভিন্ন জেলার মানুষের আগমন যেহেতু আছে তাই যানবাহনের ছাপ থাকবেই। তবে ট্রাফিক পুলিশের ভূমিকা আরও কঠোর ও শৃঙ্খল হতে হবে।
এদিকে, কক্সবাজার শহরের প্রদান সড়কের পাশে থাকা ট্রাফিক পুলিশ বক্সে একজন কনস্টেবল ছাড়া আর কাউকে দেখা যায় না। যিনি থাকেন তিনিও একাকী সময় পার করেন।
সম্প্রতি কক্সবাজার শহরে ট্রাফিকের পুলিশের ভূমিকা নিয়ে জনমনে নানান প্রশ্ন উত্তাপিত হচ্ছে। যা এড়ানোর জন্যে ট্রাফিক পুলিশের ভূমিকা আরও বৃদ্ধি করার আহ্বান জানান সাধারণ জনগণ।

Leave a Reply

%d bloggers like this: