1. editor.barta52@gmail.com : সম্পাদক : সম্পাদক ও প্রকাশক
  2. kamrancox@gmail.com : Amirul Islam Md Rashed : Amirul Islam Md Rashed

কুতুবদিয়া উপকূলে পূর্ণিমার জোয়ারে ১৩ গ্রাম প্লাবিত

  • Update Time : রবিবার, ২৫ জুলাই, ২০২১
  • ৫৫ Time View

★★★★★★★★★★★★★★★★★★★★★★

আহম্মেদ কবীর সিকদার (কক্সবাজার) কুতুবদিয়া ঃ

কক্সবাজারের কুতুবদিয়া উপজেলার ভাঙন বেড়িবাঁধ দিয়ে শনিবার (২৪ জুলাই) দুপুরে ভরা পূর্ণিমার জোয়ার ঢুকে উপকূলের ১৩ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। প্লাবিত এলাকার নিম্নাঞ্চলের ঘরবাড়ি,রাস্তাঘাট, পুকুর, খাল, বিল ডুবে যায়। এতে শতাধিক পরিবারের ঘরবাড়ি তলিয়ে গেছে। তৎক্ষনিক ক্ষয়ক্ষতির পরিমান নিরুপন করা সম্ভব হয়নি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, শনিবার সকাল ১১ হতে দুপুর ১টা পর্যন্ত পূর্ণিমার জোয়ারে আলী আকবর ডেইল ইউনিয়নের কাহারপাড়া, কাজিরপাড়া, পন্ডিতপাড়া,তেলিপাড়া,হায়দারপাড়া,বায়ুবিদ্যুৎ এলাকা, পশ্চিম তাবলরচর, দক্ষিণ ধুরুং ইউনিয়নের বাতিঘরপাড়া,লেশশীখালী ইউনিয়নের পেয়ারাকাটা, সিদ্দিক হাজিরপাড়া, কৈয়ারবিল ইউনিয়নের মলমচর, মহাজনপাড়া,মতিরবাপের পাড়া ব্যাপক এলাকা প্লাবিত হয়েছে। গত ২৫-২৬শে মে ২০২১ সনের ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের ও পূর্নিমার জোয়ারের প্রভাবে যে সব বেড়িবাঁধ লন্ডভন্ড হয়ে জোয়ার পানি লোকালয়ে সয়লাব করেছিল এবারের পূর্ণিমার জোয়ারে ঐ সব গ্রামগুলোর নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ার দৃশ্য চোখে পড়েছে।

খবর পেয়ে শনিবার দুপুরে জোয়ারে প্লাবিত এলাকা পরিদর্শন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ নুরের জামান চৌধূরী, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি আওরঙ্গজেব মাতবর, পিআইও খোকন চন্দ্র দাশ, কক্সবাজার জেলা পরিষদের সদস্য মাষ্টার আহমদ উল্লাহ বিকম, আলী আকবর ডেইল ইউপির চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুচ্ছাফা বিকম, কৈয়ারবির ইউপির চেয়ারম্যান জালাল আহমদ, দক্ষিণ ধুরুং ইউপির চেয়ারম্যান ছৈয়দ আহমদ চৌধুরী, আলী আকবর ডেইল ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি আলহাজ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম সিকদার, উপজেলা আ’লীগের যুগ্ন সাংগঠনিক সম্পাদক নাজেম উদ্দিন লালা, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক আবু জাফর ছিদ্দিকীসহ স্হানীয় ইউপির সদস্যরা।
জোয়ারে তলিয়ে যাওয়া ঘরবাড়ির লোকজনকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিং করে নিকটতম আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নেয়ার জন্য বলা হয়েছে।

এদিকে আলী আকবর ডেইল ইউনিয়নের ৬ টি গ্রামের মানুষের আহাজারি থামছে না। স্হানীয় চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুচ্ছাফা বিকম জানান, বিগত দুই মাস পূর্বে প্রাকৃতিক দূর্যোগ ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের আঘাতে বেরিবাঁধ গুলি যদি ঠিক সময়ে মেরামত করত তাহলে আজকে জোয়ারের পানিতে এতগুলো গ্রাম প্লাবিত হতোনা। কাহারপাড়া,কাজিপাড়া,পন্ডিতপাড়া, তেলিপাড়া, হায়দারপাড়া,বায়ুবিদ্যুৎ এলাকা, পশ্চিম তাবলরচরসহ প্রায় পাঁচ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে জোয়ার লোকালয়ে প্রবেশ করে ব্যাপক এলাকা প্লাবিত হয়ে কয়েক কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছিল। এসব এলাকার লোকজন তারই ক্ষতি পুষিয়ে উঠার আগেই আবারও ঐ ভাঙন এলাকা দিয়ে জোয়ারের পানি ঢুকে ঘরবাড়ি,ফসলি জমির চাষ,মৎস খামার, পুকুর,খাল বিল তলিয়ে গেছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ- বিভাগীয় অফিসের শাখা কর্মকর্তা (এসও) এলটন চাকমা জানান, গত ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের সময় যেসব এলাকা প্লাবিত হয়েছে, এবারও পূর্ণিমার জোয়ারে ঐসব এলাকা প্লাবিত হয়েছে। অবশ্য জরুরী ভিত্তিতে ভাঙন বাঁধ মেরামতের জন্য উর্ধ্বতন কতৃর্পক্ষের নিকট অর্থের চাহিদা পাঠানো হয়েছে।

Share on your Facebook

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News .....
© All rights reserved Samudrakantha © 2019
Site Customized By Shahi Kamran