1. samudrakantha@gmail.com : সম্পাদক : সম্পাদক ও প্রকাশক
  2. aimrashed20@gmail.com : Amirul Islam Rashed : Amirul Islam Rashed

আবেগাপ্লুত হয়ে পড়লেন খালেদার চিকিৎসক!

  • Update Time : রবিবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২১
  • ৪৭ Time View

গুরুতর অসুস্থতা নিয়ে হাসপাতালে সিসিইউতে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে গণমাধ্যমে কথা বলতে গিয়ে আবেগাপ্লু হয়ে পড়লেন তার মেডিক্যাল বোর্ডের প্রধান এফ এম সিদ্দিকী।
রবিবার সন্ধ্যায় গুলশানে খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে কথা বলেন মেডিক্যাল বোর্ডের সদস্যরা। কথা বলার এক পর‌্যায়ে তিনি আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। তার গলা ধরে আসে। পরে নিজেকে স্বাভাবিক করে সাংবাদিকদের চিকিৎসা সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন।
এফ এম সিদ্দিকী বলেন, লিভার সিরোসিসে আক্রান্ত বেগম খালেদা জিয়ার গত ২৪ঘণ্টায় ইন্টারনাল ব্লিডিং বন্ধ রয়েছে। কিন্তু যাদের একবার ব্লিডিং হয় তাদের আবারো এটা হতে পারে। এটা চলতে থাকলে আরো খারাপ অবস্থা হতে পারে। তারমধ্যেও আমরা শুধু দেশ নয়, এই উপমহাদেশের মধ্যে সেরাটা করার চেষ্টা করছি।
তিনি বলেন, খালেদা জিয়া কেন যেন যখন অসুস্থ হন তখন একদম মৃত্যুর দিকে চলে যান। আবার সুস্থ হয়ে ফিরে আসেন। করোনার সময় তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে চেস্ট টিউব দিয়ে ড্রেনেজ নিয়ে ১৭দিন কাটিয়েছেন। নিজে দেখেছেন কিভাবে ফ্লুইড বের হচ্ছে, রক্ত বের হয়েছে। সেখান থেকেও আমরা আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে চিকিৎসা করে তাকে সুস্থ করেছি।
খালেদা জিয়ার এই ব্যক্তিগত চিকিৎসক বলেন, আমাদের ওপর তিনি যথেষ্ট বিশ্বাস রেখেছেন, ভরসা রাখেন। আমাদেরও এর থেকে আর কিছু করারও নেই। ওই সময় আমরা ভালো করেছি। ওই সময় আমাদের আত্মবিশ্বাস ছিল। কিন্তু এই সময় আমরা কিন্তু হেল্পলেস ফিল করছি। ম্যাডাম আমাদের মুখ দেখে এটা বুঝতে পেরেছেন। ডা. জাহিদ হোসেনকে তিনি জানতে চেয়েছেন ওদের (চিকিৎসক) মুখ কালো কেন? ওরা কি আমাকে নিয়ে বেশি টেনশন করছে? তখন আমরা গিয়ে তাকে বলেছি না ম্যাডাম….আপনি অসুস্থ হলে আমাদের তো খারাপই লাগে। ’ একথা বলতেই তার চোখ ছলছল করে ওঠে। কণ্ঠ ধরে আসে।
তিনি বলেন, এমন অবস্থায় যেহেতু কোনো করারও থাকে না তাই আমরা হেল্পলেস ফিল করি।

Share on your Facebook

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News .....

© All rights reserved Samudrakantha © 2019

Site Customized By Shahi Kamran