1. samudrakantha@gmail.com : সম্পাদক : সম্পাদক ও প্রকাশক
  2. aimrashed20@gmail.com : Amirul Islam Rashed : Amirul Islam Rashed

‘মদ খেয়ে’ ডিসি অফিসে ঢুকে যুবকের মাতলামি!

  • Update Time : বুধবার, ২০ এপ্রিল, ২০২২
  • ২৮৬ Time View

নিজস্ব প্রতিনিধি ::

মদ খেয়ে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ে প্রবেশ করে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ, মাতলামি ও ডিসি অফিসের সবাইকে দেখে নেওয়ার হুমকি দিয়েছে আবদুল আমিন প্রকাশ মংগা নামের এক যুবক। যদিও তিনি মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন বলে জানা গেছে।

বুধবার ২০এপ্রিল বিকেল ৫টার দিকে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)আমিন আল পারভেজ এর দপ্তরে ভিতরে সেবা প্রার্থীদের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

আব্দুল আমিন প্রকাশ মংগার বাড়ী টেকনাফ উপজেলার শামলাপুর এলাকায় বাহারছড়া ইউনিয়নে বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়,বুধবার বিকেল ৫টার দিকে মদ্যপান অবস্থায় হঠাৎ এডিসি রেভিনিও রুমে প্রবেশ করে মংগা। এরপর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আমিন আল পারভেজকে উদ্দেশ্যে করে বলেন, আমাকে এখন টাকা দিতে হবে।টাকা না দিলে ডিসি- মিসি সবাইকে দেখে নেবো। এসময় তাকে কয়েকজন মিলে থামানোর চেষ্টা করলে তিনি সবাইকে উদ্দেশ্যে করে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন।

এক পর্যায়ে সেখানে উপস্থিত কয়েকজন সেবাপ্রার্থী ওই যুবককে পুলিশের হাতে তুলে দিতে চাইলে এডিসি আমিন আল পারভেজ ওই যুবক মানসিকভাবে অসুস্থ জানিয়ে তাদেরকে নিষেধ করেন।তার মুখ থেকে মদের গন্ধ বের হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

কিন্তু পরে সে জেলা প্রশাসনের কার্যলয় থেকে বের হয়ে উল্টো তাকে মারধর করা হয়েছে অভিযোগ তুলে অপপ্রচার চালিয়ে সহানুভূতি আদায়ের চেষ্টা করছে বলে জানাগেছে।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানাগেছে,আব্দুল আমিন প্রকাশ মংগা একটা ভূয়া পাওয়ার অফ এটনীর্র নিয়ে মেরিন ড্রাইভ রোডে অধিগ্রহণের বড় ডেইল মৌজার কিছু দাগে ক্ষতিপূরণ দাবি করে। কিন্ত তার দেওয়া দলিলটা ভূয়া, রেজিষ্ট্রি অফিসে নাই। সাব রেজিস্ট্রার অফিসেও চিঠি দিয়ে জানিয়েছে এ দলিলের কোন অস্থিত্ব নাই।
সর্ব শেষ বুধবার এল.এ অফিসার নিজে গিয়ে রেকর্ড রুমে যাচাই করে দেখেছেন। ভূয়া দলিল হওয়ায় রেকর্ড রুমে এ দলিলের অস্থিত্ব কোন পাননি তিনি। এ খবর জানার পর মদ খেয়ে মাতলামি শুরু করেন আব্দুল আমিন।

অনুসন্ধানে জানা যায়, টেকনাফের শাপলাপুর এলাকার আব্দুল আমিন মংগা নামের এক যুবক একই এলাকার জনৈক বেগম বাহার নামে এক মহিলার নিকট থেকে প্রতারণার মাধ্যমে আমমোক্তারনামা তৈরি করে। বেগম বাহার প্রতারণা বুঝতে পেরে পরে সেই আমমোক্তারনামা বাতিল করেন। এই বাতিল আদেশের বিরুদ্ধে মংগা আদালতে গেলে আদালত বেগম বাহারের পক্ষে রায় দেন। আদালত কর্তৃক বাতিল ঘোষিত আমমোক্তারনামার বিপরীতে ক্ষতিপূরন প্রদান সম্ভব নয় মর্মে লিখিতভাবে জানিয়ে দেয়ার পর সে একই নম্বরের ভিন্ন একটি সালের কথিত আমমোক্তারনামার অনুলিপি দাখিল করে ক্ষতিপূরণের অর্থ দাবী করে।

বুধবার ২০এপ্রিল ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা আরাফাত হোসেন সরাসরি জেলা রেজিস্ট্রার অফিসে গিয়ে যাচাই করে জানতে পারেন যে, আব্দুল আমিন মংগা কর্তৃক উপস্থাপিত নতুন আমমোক্তারনামার নামার কোন অস্তিত্ব নেই।
এটি জানার পর বিকেল ৫ টার দিকে মংগা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)-এর দপ্তরে
প্রবেশ করে মদ্যপান অবস্থায় মংগা আমি শুরু করি মাতলামি ও সেবা প্রার্থীদেরও গালিগালাজ করেন।

খোঁজ নিয়ে যায়,সম্প্রতি রামু উপজেলা থেকে আসা এক কৃষক প্রতারণার মাধ্যমে তার নিকট থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে আব্দুল আমিন মংগাকে আটক করে। পরে সে টাকা ফেরত দেয়ার আশ্বাস দিয়ে মুক্তি পায়।

এদিকে মাতলামি করে জেলা প্রশাসনের অফিস থেকে বাইরে গিয়ে আব্দুল আমিন মংগা তাকে মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার চালাচ্ছেন।

এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত আব্দুল আমিনের সাথে কথা বলার চেষ্টা করা হলে তিনি রিং পড়ার পর ফোন বন্ধ করে দেন।

এবিষয়ে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) বলেন, একটি সরকারি অফিস হিসেবে তার দপ্তর সেবাপ্রার্থীদের জন্য সর্বদা খোলা। এই সুযোগে এই প্রতারক সেখানে আনাগোনা করে। তার বিরুদ্ধে শীঘ্রই আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি মংগার অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হবার জন্য সকলের প্রতি অনুরোধ জানান।

এদিকে স্থানীয়রা জানিয়েছে আব্দুল আমিন ওরফে মংগা মানসিকভাবে অসুস্থ। তাকে যে কেউ ৫০০টাকা দিলে ইট দিয়ে মেরে মাথা ফাঁটানোর ঘটানো সে ঘটিয়ে থাকে।এ মুযোগে অনেকেই তাকে ব্যবহার করে।####

Share on your Facebook

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News .....

© All rights reserved Samudrakantha © 2019

Site Customized By Shahi Kamran